রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

বুধবার ১৬ জুন ২০২১, ২রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ বিলাইভ মিউজিক স্টেশন থেকে আগামী রবিবার আসছে রাহিব খানের ❝তুই আশিকি❞ ◈ আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন সংগঠক মোস্তফা কামাল মাহদী ◈ বিএসআরএফ দপ্তর সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় মোসকায়েত মাশরেককে শুভেচ্ছা ◈ ঠাকুরগাঁওয়ে ধর্ষন মামলা আসামীকে পুলিশের সহযোগীতার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন ◈ ঘাটাইল লক্ষিন্দর ইউনিয়নে টাকা ছাড়া হয় না ভাতা কার্ড ◈ রেড ক্রিসেন্ট চট্টগ্রামের উদ্যোগে বিশ্ব রক্তদাতা দিবস উদযাপন ◈ জাগ্রত আছিম গ্রন্থাগারের উদ্যোগে স্থানীয় মাদ্রাসায় বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন ◈ কালিহাতীতে বাড়ছে করোনা, সামাজিক সচেতনতায় ইউএনও’র ব্যতিক্রমী উদ্যোগ অব্যাহত ◈ মুক্তাগাছায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে ৭ জনের জেল ◈ রায়পুরায় ট্রেনের সাথে প্রাইভেটকারের ধাক্কা, ঘটনার ৬ দিনপর এক পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু

মহানবী (সা.) শিশুদের ভালোবাসতে শিখিয়েছেন

প্রকাশিত : ০৫:৩২ AM, ১৫ অগাস্ট ২০১৯ বৃহস্পতিবার ৩৪১ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

মুফতি মুহাম্মদ মর্তুজা, অতিথি লেখক

রাসুল (সা.) শিশুদের ভালোবাসতেন। প্রিয় নাতিদের সঙ্গে খেলা করতেন। তাঁদের আদর করতেন। কারণ শিশুরাই একটি জাতির ভবিষ্যৎ। চরিত্রবান ও সুস্থ শিশু সুস্থ জাতি বিনির্মাণের পূর্বশর্ত। তাদের মানসিক ও চারিত্রিক বিকাশ ঘটাতে হবে ভালোবাসা দিয়ে; শুধু শাসন করে তা কোনো দিনও সম্ভব নয়। হজরত আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত, এক বেদুইন রাসুল (সা.)-এর কাছে এসে বলল, আপনারা কি শিশুদের চুমু দেন? আমরা শিশুদের চুমু দিই না। রাসুল (সা.) বলেন, আল্লাহ যদি তোমার অন্তর থেকে দয়ামায়া তুলে নেন, তাহলে তোমার জন্য আমার কী করার আছে? (বুখারি, মুসলিম, ইবনে মাজাহ)

শিশুরা আল্লাহর উপহার। তাদের সঠিকভাবে পরিচর্যা করা আমাদের দায়িত্ব। তাদের সময় দেওয়া, ধীরে ধীরে ইসলামের বিভিন্ন রীতি-নীতি শিক্ষা দেওয়া, পারিবারিক ও সামাজিক বিভিন্ন বিষয়ে আস্তে আস্তে সচেতন করা অত্যন্ত জরুরি। পাশাপাশি ছোট ছোট সুরা শেখানোর চেষ্টা করা যেতে পারে। কারণ সন্তানকে সঠিকভাবে গড়ে তুলতে পারলে মহান আল্লাহ আমাদের দুনিয়া ও আখিরাত, উভয় জাহানে সম্মানিত করবেন। রাসুল (সা.) ইরশাদ করেছেন, যে ব্যক্তি কোরআন পড়বে এবং সেই মোতাবেক আমল করবে, তার পিতা-মাতাকে কিয়ামতের দিন মুকুট পরানো হবে। (আবু দাউদ)

শিশুরা স্বভাবতই বিভিন্ন বিষয়ে বায়না ধরে। তারা হঠাৎ কোলে উঠতে চায়, কখনো কোনো খাবারের জন্য বায়না ধরে (যদিও খাবার এনে দিলে সে খুব বেশি খাবে না)। এতে বিরক্ত হওয়া উচিত নয়; বরং সেই খাবার ঘরে না থাকলে তাদের অন্য কিছু দিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করা উচিত। খাওয়ার সময়, কাপড় পরার সময় বিভিন্ন সুন্নতের অনুশীলন করানো উচিত। তাদের জন্য খরচ করলে তা বিফলে যায় না।

হজরত মিকদাম ইবনে মাদীকারিব (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি রাসুলুল্লাহ (সা.)-কে বলতে শুনেছেন, তুমি নিজেকে যা খাওয়াও তা তোমার জন্য সদকা, তোমার সন্তানকে তুমি যা খাওয়াও তা-ও তোমার জন্য সদকা, তোমার স্ত্রীকে তুমি যা খাওয়াও তা-ও তোমার জন্য সদকা এবং তোমার খাদেমকে যা খাওয়াও তা-ও তোমার জন্য সদকা। (আবু দাউদ)

এক মহিলা আয়েশা (রা.)-এর কাছে এলে তিনি তাকে তিনটি খেজুর দেন। সে তার ছেলে দুটিকে একটি করে খেজুর দেয় এবং নিজের জন্য একটি রেখে দেয়। তারা খেজুর দুটি খেয়ে তাদের মায়ের দিকে তাকাল এবং অবশিষ্ট খেজুরটি পেতে চাইল। সে খেজুরটি দুই টুকরা করে প্রত্যেককে অর্ধেক অর্ধেক দিল। রাসুল (সা.) ঘরে এলে আয়েশা (রা.) তাঁকে বিষয়টি অবহিত করেন। তিনি বলেন, এতে তোমার বিস্মিত হওয়ার কি আছে। সে তার ছেলে দুটির প্রতি দয়াপরবশ হওয়ার কারণে আল্লাহ তার প্রতি দয়াপরবশ হয়েছেন। (বুখারি, মুসলিম, তিরমিজি, ইবনে মাজাহ)

ছেলে-মেয়ে, নাতি-নাতনি মানুষের আত্মার আত্মীয়। তাদের জন্য বেশি বেশি দোয়া করা আমাদের সবার কর্তব্য। এটা প্রিয় নবী (সা.)-এর শিক্ষা। হজরত বারাআ (রা.) থেকে বর্ণিত, আমি রাসুল (সা.)-কে দেখেছি যে হাসান তাঁর কাঁধের ওপর আসীন অবস্থায় তিনি বলছেন, হে আল্লাহ! আমি একে ভালোবাসি। অতএব, তুমিও একে ভালোবাসো। (বুখারি, মুসলিম, তিরমিজি, নাসায়ি)

লেখক: সাংবাদিক ও ফতোয়া-গবেষক

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT