রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

০১:১৩ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ কবিতা : ইতি – মোঃ সাইফুল ইসলাম  ◈ রায়পু‌রে চোরাই মোটরসাই‌কেল উদ্ধার, মূল হোতার খোঁ‌জে পু‌লিশ ◈ হাঁটাবান্ধব পরিবেশ ও আধুনিক গণপরিবহন ব্যবস্থা নিশ্চিত করার দাবি ◈ ভূঞাপুরে শতভাগ বিদ্যুতায়নের এলাকায় লাইন জোড়াতালি-জরাজীর্ণ ◈ উলিপুরে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের আগুনে পুড়ে গরুর মৃত্যু ◈ কালিহাতীতে জয়কালি মন্দিরের কিচেন ব্লক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ◈ বাংলাদেশের জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির উদ্যেগে সরিষাবাড়ী উপজেলা যুবদলের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত ◈ গোপালপুরে ইজিবাইকের চাকায় পিষ্ট হয়ে শিশুর মৃত্যু ◈ রামগঞ্জে মাদ্রাসা ছা‌ত্রের পা‌য়ে শিকল বে‌ধে নির্যাত‌নের অ‌ভি‌যোগ মাদ্রাসা শিক্ষ‌কের বিরু‌দ্ধে ◈ ঘাটাইলে কাশতলা জামে মসজিদ ও রাস্তা পুনঃ র্নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

ভালুকায় চলছে ভূমি জবর দখল রহস্য জনক কারনে নিরব বনবিভাগ

প্রকাশিত : ১২:২১ AM, ২৯ নভেম্বর ২০১৯ শুক্রবার ৩৬৫ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

স্টাফ রিপোর্টারঃ
ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার কাদিগড় বন বিটের অধীন পারাগাঁও মৌজার বড়চালা নামক স্থানে বন গেজেট ভূক্ত ৯৮৮ নং দাগে অবৈধ ভাবে সিমানা প্রাচীর নিমার্ন করে বন ভূমির জমি জবর দখলের অভিযোগ উঠেছে।

জানা যায় হবিরবাড়ির বিক্ষ্যাত ভূমিদস্যু তার সশস্র বাহিনির উপস্থিতিতে প্রায় ৮ একর ভুমি জবর দখলের উদ্বেশে পারাগাঁও মৌজার সিএস ৯৮৭ এবং বন গেজেট ভূক্ত ৯৮৮ নং দাগে অবৈধ ভাবে সিমানা প্রাচীর নির্মান করছে। স্থানীয়রা জানান ৮ একর ভূমির মধ্যে প্রায় ৩ একর ভূমি বন গেজেট ভুক্ত।

অভিযোগ উঠেছে হবিরবাড়ির একটি প্রভাবশালী মহল স্থানীয় বন কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে এ সিমানা প্রাচীর নির্মান করছে। স্থানীয়দের অভিযোগ প্রভাবশালী মহলটি বিভিন্ন ঝামেলাপূর্ণ জমি প্রথমে সিমানা প্রাচীর নির্মান করে দখল করে পরে বিভিন্ন কোম্পানির মালিকের কাছে চড়া দামে বিক্রি করে দেয় আর হাতিয়ে নেয় কোটি কোটি টাকা। ৯৮৮ নং দাগে সিমানা প্রাচীর নির্মান প্রসঙ্গে বনখেকোদের একজন বলেন, এটা সিএস জমি এই জমিটি আমি ক্রয় করে রেখেছি।

আমি আমার জমিতে সিমানা প্রাচীর নির্মান করছি এখানে কোন ঝামেলা নেই। এ ব্যাপারে কাদিগড় বিটের বিট কর্মকর্তা আশরাফুল আলম বলেন, যেখানে সিমানা প্রাচীর নির্মান করা হচ্ছে সেটা সিএস ৯৮৭ এবং বন গেজেট ভূক্ত ৯৮৮ দাগ। আমি ৯৮৮ নং দাগে কাজ করতে নিষেধ করেছি। তারা কাজ অব্যাহত রেখেছে কিনা বিষয়টি আমি জানিনা। ভালুকা রেঞ্জ কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক মোবাইল ফোনে সাংবাদিকদের বলেন, আমি উত্তর দিতে বাধ্য নই।

তথ্য অধিকার আইনে আবেদন করে তথ্য নিতে হবে। বিভাগীয় বন কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন বন ভূমিতে কাজ করেনা। তারা তাদের জমিতেই কাজ করছে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT