রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

০৩:০৯ অপরাহ্ণ

শিরোনাম
◈ কাপ‌ড়ের রং দি‌য়ে আইস‌ক্রিম তৈ‌রি, অর্ধলক্ষ টাকা জ‌রিমানা ◈ চাটখিলে ব্রাকের এডভোকেসি সভা অনুষ্ঠিত ◈ ঐতিহ্যের স্মারক বিক্রমপুর জাদুঘর ◈ মুক্তাগাছায় নিজ মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে পিতা গ্রেফতার ◈ মুক্তাগাছায় নিজ মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে পিতা গ্রেফতার ◈ কলমাকান্দায় যুবলীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত ◈ তাহিরপুরে দুর্গাপূজা উদযাপন পরিষদের সাথে থানা পুলিশের মতবিনিময় ◈ ভালুকায় তিতাস গ্যাস অফিসের অনিয়ম-দুর্নীতি এখন ‘নিয়ম’ ◈ করোনার কারনে দীর্ঘদিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বাল্যবিয়ের শিকার হয়েছে এক প্রতিষ্ঠানের ৮৫ স্কুল ছাত্রী ◈ হামলার প্রতিবাদে শরীয়তপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের অবস্থান

‘ব্যালইন জালে’ মত্স্যশূন্য হচ্ছে বরগুনার জলাশয়

প্রকাশিত : ১১:৪৫ AM, ৫ অক্টোবর ২০১৯ শনিবার ৩৫৫ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

বরগুনায় খাল ও জলাশয়গুলোতে এক ধরনের সূক্ষ্ম ফাঁসের ব্যালইন জাল (স্থানীয় নাম) পেতে রাখায় দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে সেখানকার দেশীয় মাছ। শিং, কই, মাগুর, পুঁটি, কোড়াল, বোয়াল, শোল, বেলে, ভেদি, চিংড়িসহ হরেক রকম সুস্বাদু মাছ আর তেমন দেখা যাচ্ছে না। এছাড়া ছোটো ফাঁসের কারেন্ট জালও মাছ ধ্বংসের কারণ হিসেবে সংশ্লিষ্টরা মনে করেন।

বরগুনার খাজুরতলা, লাকুরতলা, ছোটোবদরখালী, আমতলী, গৌরীচন্না, কুমড়াখালী, কাটাখালীসহ বিভিন্ন গ্রামের খালগুলো সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিটি খালেই ১০ থেকে ১২টা ব্যালইন জাল পাতা রয়েছে। বৈশাখ-জ্যৈষ্ঠ মাসে প্রথম দিকে মাঠে যখন পানি ওঠে তখনই এ জালগুলো খালের এপার ওপার জুড়ে পেতে রাখা হয়। কোনো কোনো জাল পাতা অবস্থায়ই নষ্ট হয়ে যায়। আবার কোনোটি ভালো থাকলে সিজনের শেষ দিকে ওপরে তোলা হয়। জালগুলো জোয়ার-ভাটায় দিন-রাত পেতে রাখার কারণে নতুন করে আর মাছ খাল-বিলে উঠতে পারে না। একসময় মত্স্যশূন্য হয়ে পড়ে জলাশয়গুলো।

বরগুনার গৌরীচন্না ইউনিয়নের আমতলী গ্রামের ব্যবসায়ী মোস্তাফিজুর রহমান সিকদার বলেন, ব্যালইন জাল তৈরি হওয়ার আগে খাল-বিলে ডোবায় ঝাঁকি জাল দিয়ে প্রচুর ছোটো চিংড়ি, তিতপুঁটি, টেংড়া. চেলা, বাতাশি, গলদা, মলান্দি মাছ পাওয়া যেত। পাওয়া যেত শিং, কই, জাগুর, শোল, গজার, কোড়াল, বোয়াল, টাকি, পাবদা, স্বরপুঁটি, আইড়, ফলইসহ হরেক রকমের দেশীয় প্রজাতির সুস্বাদু মাছ। ব্যালইন জালের কারণে এ মাছগুলো আর দেখাই যায় না।

একই কথা জানালেন ছোটোবদরখালী গ্রামের মোতালেব মিয়া, গৌরীচন্নার ইদ্রিস আলী, কুমড়াখালীর মন্নান মিয়া, পাতাকাটার সুধীরসহ অনেকে। জেলার অন্য উপজেলার জলাশয়গুলোরও একই অবস্থা।

এব্যাপারে বরগুনা জেলা মত্স্য অফিসার আ ক ম আবুল কালাম আজাদ বলেন, ব্যালইন জাল পাতা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। এ জাল পাতা বন্ধ করতে শিগিগরই মোবাইলকোর্ট পরিচালনা করা হবে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT