রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

বৃহস্পতিবার ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩শে আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

০১:২৩ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ প্রেমিকার পরিবারের দেয়া আগুনে পুড়ল প্রেমিক সিরাজের মা ॥ পিবিআইয়ের অভিযানে বাবা-মা গ্রেফতার ◈ গ্রীনভ্যালী পার্কে সাংবাদিকদের দিনব্যাপী আনন্দ উদযাপন ◈ বানভাসিদের মাঝে শুদ্ধস্বর কবিতা মঞ্চের ঈদ উপহার ◈ নাড়াইলের লোহাগড়ায় সেনাপ্রধানের পক্ষে দুঃস্থ অসহায়দের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ  ◈ কাঁদির জঙ্গল ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ভিজিএফ’র চাউল বিতরণ। ◈ মোমেন সরকার সিরাজকান্দি দাখিল মাদ্রাসার পুনরায় সভাপতি নির্বাচিত ◈ দেশবাসীকে ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মাশরুকুর রহমান। ◈ ছাতকের খালেদ উদ্দিন লন্ডনে মাস্টার্স ডিগ্রী অর্জন করেছে। ◈ নওগাঁর চাঞ্চল‍্যকর সড়ক দূর্ঘটনায় ৪ শিক্ষকসহ ৫ জনের মৃত‍্যুর জন‍্য দায়ী ট্রাক চালককে আটক করেছে র‍্যাব- ৫ ◈ তাহিরপুর নিম্নাঞ্চলে ঈদের আনন্দ নয়,মাথা গোঁছার ঠাঁই খুঁজছেন বানভাসিরা 

বিশ্বের যত আকাশ ছোঁয়া ভবন!

প্রকাশিত : 02:21 PM, 4 January 2022 Tuesday 123 বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

ব্যতিক্রমী যে কোন কিছুই সব সময় আমাদের নজর কেড়ে নেয়। প্রাচীন আমলের বিভিন্ন শৈল্পিক স্থাপত্যগুলো আমাদের দারুণ কৌতুলি করে তোলে। তখনকার শীল্পিদের করা কারুকার্য বা নকশা আমাদের গভীর ভাবে ভাবায়।

প্রাচীন সময়কার স্থাপত্য গুলোতে ছিলো শৈল্পিকতায় ছড়াছড়ি। আবার বর্তমান সময়ের আধুনিক স্থাপত্যশিল্পের উঁচু ভবনগুলো এক অসাধারণ নিদর্শন রাখছে। তবে উঁচু ভবন নির্মাণের ইতিহাস খুব বেশি দিন নয়। ঊনিশ শতাব্দীর মধ্যভাগ থেকে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভবনগুলোর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। আজ তাহলে জেনে নেয়া যাক পৃথিবীর সেরকম কিছু উচুঁ ভবনের গল্প।

বুর্জ খলিফা

বর্তমানে পৃথিবীর সবচেয়ে উচ্চতম ভবন হিসেবে ধরা হয় ‘বুর্জ খলিফা’ কে। এটি ‘দুবাই টাওয়ার’ নামেও পরিচিত। ২৭১৭ ফুট উচ্চতা সম্পন্ন এ ভবনটি আরব আমিরাতের দুবাই শহরে অবস্থিত। ভবনটি ১৬৩টি ফ্লোর বিশিষ্ট। ৪ জানুযারি, ২০১০ সালে উদ্বোধন করা হয়। নির্মাণকালে এর বহুল প্রচারিত নাম ‘বুর্জ দুবাই’ থাকলেও উদ্বোধনকালে নাম পরিবর্তন করে ‘বুর্জ খলিফা’ রাখা হয়।

সাংহাই টাওয়ার

সাংহাই টাওয়ারটি চীনের সাংহাই শহরে অবস্থিত। বর্তমানে বিশ্বের দ্বিতীয় উচ্চতম ভবন হিসেবে পরিচিত। ভবনটির উচ্চতা ২০৭৩ ফুট। এতে রয়েছে মোট ১২৮টি ফ্লোর। টাওয়ারটি নির্মাণ করতে সময় লাগে প্রায় সাত বছর। যা ২০০৮ সালের নভেম্বর মাসে শুরু হয়ে চলে ২০১৫ সালে পর্যন্ত। এরপর এটিকে জনসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হয়।

আবরাজ আল-বাইত টাওয়ার

আবরাজ আল-বাইত টাওয়ারটি সৌদি আরবের মক্কা সরকারের মালিকানাধীন একটি কমপ্লেক্স ভবন। এটি ‘মক্কা রয়েল হোটেল ক্লক টাওয়ার’ এবং ‘বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা ঘড়ির টাওয়ার’ নামেও পরিচিত। বর্তমানে বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ ভবনের মর্যাদা লাভ করেছে এই ভবনটি। এর উচ্চতা ১৯৭২ ফুট। এর রয়েছে মোট ১২০টি ফ্লোর। ২০১২ সালে ভবনটির নির্মাণ কাজ শেষ হয়।

লোটে ওয়ার্ল্ড টাওয়ার

লোটে ওয়ার্ল্ড টাওয়ারটি দক্ষিণ কোরিয়ার সিউল শহরে অবস্থিত। এটি দক্ষিণ কোরিয়ার সর্বোচ্চ উঁচু এবং বিশ্বের পঞ্চম উচ্চতম ভবন হিসেবে পরিচিত। এর উচ্চতা ১৮১৯ ফুট। এতে রয়েছে মোট ১২৩টি ফ্লোর। ২০১৭ সালের ৩ এপ্রিল টাওয়ারটি সবসাধারণের জন্য খুলে দেয়া হয়।

ওয়ান ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার

ওয়ান ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারটি পাশ্চাত্য বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু এবং বিশ্বের ষষ্ঠ উচ্চতম ভবন। এর উচ্চতা ১৭৭৬ ফুট। এই ভবনটিতে মোট ১০৪টি ফ্লোর রয়েছে। এটি যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্ক সিটিতে অবস্থিত। ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর তারিখে সন্ত্রাসী হামলায় ধ্বংস প্রাপ্ত আসল ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার টুইন টাওয়ারের সঙ্গে মিল করে এর নামকরণ করা হয়। ২০১৪ সালে এই ভবনটির নির্মাণ কাজ শেষ হয়।

থিয়েনচিন সিটিএফ ফাইনান্স সেন্টার

 

থিয়েনচিন সিটিএফ ফাইনান্স সেন্টার বিশ্বের অষ্টম উচ্চতম এই ভবনটি চীনের থিয়েনচিন শহরে অবস্থিত। এটির উচ্চতা ১৭৩৯ ফুট। এতে মোট ৯৮টি ফ্লোর রয়েছে। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালে এই ভবনটির নির্মান কাজ শেষ হয়েছে।

তাইপে ১০১

তাইপে ১০১ এটি একটি সুপরিচিত বহুতল ভবন যা তাইওয়ানের জিনই জেলার, তাইপে শহরে অবস্থিত। এর পূর্বের নাম ছিল তাইপে ওয়ার্ল্ড ফাইন্যান্সিয়াল সেন্টার। ‘তাইপে ১০১’ এর নকশা প্রনয়ন করেছে সি ওয়াই লি এন্ড পার্টনার্স এবং নির্মাণ করেছে কেটিআরটি জয়েন্ট ভেঞ্চার। এর উচ্চতা ২৬৭১ ফুট এবং ভবনটি ভূমির ওপর ১০১টি তলা এবং মাটির নিচে ৫টি তলা রয়েছে। ২০০৪ সাল থেকে এটি জনগণের জন্য উম্মুক্ত করা হয়। ২০০৪ সাল থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত এটি ছিল বিশ্বের সর্বোচ্চ ভবন।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT