রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শুক্রবার ০৭ মে ২০২১, ২৪শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

১১:০৭ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ কোম্পানীগঞ্জে জেলেদের মাঝে ভিজিএফ এর চাল বিতরণ ◈ ফরিদগঞ্জে প্রতিবন্ধী বৃদ্ধাকে ধর্ষণ করলো এক যুবক ◈ বরগুনার আমতলী থানা হতে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী র‌্যাব-৮, সিপিসি-১ (পটুয়াখালী ক্যাম্প) কর্তৃক গ্রেফতার ◈ ধামইরহাটে কাপড় ও মুদি দোকানে মোবাইল কোর্টে জরিমানা ◈ মৌলভীবাজারে শেষ হলো ভোক্তা অধিদপ্তরের বিশেষ সেবা সপ্তাহ; জরিমানা ৬৯ হাজার টাকা ◈ নরসিংদীর বেলাবতে এজাহার ভোক্ত আসামী গ্রেফতারঃ ◈ তাহিরপুরে বালুপাথর সহ ট্রাক,ষ্টীল বডি নৌকা ও ভারতীয় মদ ও কয়লা আটক ◈ কোটচাঁদপুর পৌর মেয়র নিজ অর্থায়নে ২নং পৌর ওয়ার্ডে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করলেন ◈ তাহিরপুরে চুরিতে বাঁধা দেওয়ায়,চোরের ছুরিঘাতে গ্রাম পুলিশ নিহত ◈ বুড়িচংয়ে আলী আহাম্মদ ফাউন্ডেশনের ঈদ উপহার ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

বাবা-মাকে নিয়ে যাচ্ছে অ্যাম্বুলেন্স, মর্গে পড়ে আছে ছোঁয়া মনির নিথর দেহ

প্রকাশিত : ০৫:১৮ PM, ১২ নভেম্বর ২০১৯ মঙ্গলবার ১৮৩ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

তিন বছরের ছোঁয়া মনি। কয়েক ঘণ্টা আগেও ছিল মা আর বাবার কোলে। এই দুজনকে ছেড়ে এক মুহূর্তও তাকে রাখা যেত না কারো কাছে। মা কিম্বা বাবাকে সামনে না দেখলে জুড়ে দিতো কান্না। অথচ কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে এখন আর আব্বু-আম্মুর জন্য ছোঁয়া মনির কণ্ঠে কোনো আকুতি নেই! অ্যাম্বুলেন্সে করে ছোঁয়া মনির কাছ থেকে শত মাইল দূরে, আরও দূরে ঢাকার উন্নত কোনো হাসপাতালের দিকে এগোচ্ছেন আব্বু-আম্মু। আর ছোঁয়া মনির নিথর দেহ পড়ে আছে আরেক হাসপাতালে লাশঘরে।

ছোঁয়া মনির বাবার নাম সোহেল মিয়া, মা নাজমা বেগম। সোমবার ভোর রাতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মন্দবাগে মর্মান্তির ট্রেন দুর্ঘটনায় তারা উভয়ে গুরুতর আহত হয়েছেন। আহত হয়েছিল তাদের কোলে থাকা শিশু সন্তান ছোঁয়া মনিও।

অন্যদের মতো তাদের তিনজনকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে যান উদ্ধারকারীরা। এত বড় দুর্ঘটনার দকল এত ছোট শরীর বইতে পারেনি। হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক জানান ছোঁয়া মনি আর বেঁচে নেই। অন্যদিকে সোহলে ও নাজমার অবস্থা বেশি গুরুতর হওয়ায় তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে পাঠিয়ে দেয়া হয় ঢাকা মেডিকেলে।

 

সোহলে ও নাজমাকে নিয়ে যখন ঢাকায় যাওয়া হচ্ছিল তখন ছোঁয়া মনির মামা জামাল মিয়া ভাগ্নির লাশ বুঝে নিতে হাসপাতালের মর্গ আর পুলিশের কাছে দৌড়াদৌড়ি করছেন।

ছোঁয়া মনির লাশটি ময়নাতদন্ত ছাড়া বাড়ি নিয়ে যেতে চান জামাল। তিনি আজ মঙ্গলবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক বরাবর একটি আবেদনপত্র জমা দিয়েছেন।

তাতে লিখেছেন, “আপনার বরাবরে এই মর্মে আবেদন করিতেছি যে, আমার অধুনামৃত ভাগ্নি ছোঁয়া মনি, বয়স অনুমান ৩ বৎসর, পিতা: সোহেল মিয়া, মাতা: নাজমা বেগম, গ্রাম: বানিয়াচং, পোস্ট বানিয়াচং, থানা বাহিনয়াচং, জেলা: হবিগঞ্জ অদ্য ১২ নভেম্বর মঙ্গলবার ভোর অনুমান ৪ ঘটিকার সময় মন্দবাগ রেলস্টেশনে মর্মান্তিক ট্রেন দুর্ঘটনায় আহত হইলে আমার ভাগ্নি ছোঁয়া মনিকে উদ্ধার করিয়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক আমার ভাগ্নি ছোঁয়া মনিকে মৃত বলিয়া ঘোষণা করেন। বর্তমান আমার অধুনামৃত ভাগ্নির লাশ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের মর্গে আছে। এ ব্যাপারে আমাদের পরিবারের পক্ষ হইতে আমার ভাগ্নির মৃত্যুর ব্যাপারে কোন অভিযোগ নাই বা কোনো প্রকার মামলা মোকদ্দমা করিব না বলিয়া আমিসহ আমার পরিবারের লোকজন প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হইতেছি।”

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT