রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

০৫:৪৬ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ ধামইরহাটে সোনার বাংলা সংগীত নিকেতনের বার্ষিক বনভোজন ◈ ধামইরহাটে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ◈ পত্নীতলায় করোনা সচেতনতায় নারীদের পাশে তথ্য আপা ◈ ফুলবাড়ীয়া ২ টাকার খাবার ও মাস্ক বিতরণ ◈ কাতারে ফেনী জেলা জাতীয়তাবাদী ফোরামের দোয়া মাহফিল ◈ হাসিবুর রহমান স্বপন এমপির রোগ মুক্তি কামনায় মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত ◈ দৈনিক আলোকিত সকালের ষ্টাফ রিপোর্টার আশাহীদ আলী আশার ৪৩তম জন্মদিন পালিত ◈ সাবেক সেনা কর্মকর্তা ও ফুটবলার রফিকুল ইসলাম স্মরণে দোয়া ও মিলাদ আজ ◈ লক্ষ্মীপুর জেলার শ্রেষ্ঠ ও‌সির পুরস্কার পে‌লেন ও‌সি আবদুল জ‌লিল ◈ কাতার সেনাবাহিনীর বিপক্ষে বাংলাদেশের পরাজয়

ফাইনালে ওঠার তৃপ্তির সঙ্গে কিছু প্রশ্নও

প্রকাশিত : ০৬:২৮ AM, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ Sunday ২৮২ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

আফগানিস্তানের বিপক্ষে পাঁচ বছর পর টি-টোয়েন্টিতে জয়ের দেখা পাওয়া গেছে। সেই ২০১৪ সালে, বিশ্ব টি-টোয়েন্টির গ্রুপ পর্বের ম্যাচে ৯ উইকেটে জয়ের পর কাল ৪ উইকেটের জয়ে ভাঙল ৪ ম্যাচে হারের বৃত্ত। এই জয়ে তৃপ্তি যেমন আছে, তেমনি জয়ের পরে থেকে যাচ্ছে কিছু প্রশ্নও।

ম্যাচের পর পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে এসে সাকিব আল হাসান বললেন, ‘গত কয়েকটি মাস ধরে টি-টোয়েন্টিতে আমরা ভালো করতে পারিনি। আমরা ভালো করার চেষ্টা করছি। এই উইকেটেও বোলাররা ভালো করেছে। কাউকে না কাউকে শেষ পর্যন্ত ব্যাট করতে হতো আর সৌভাগ্যক্রমে দিনটা ছিল আমার। কখনো মনে হয়নি আমি ছন্দে ছিলাম না। যে বলটা যেভাবে মারতে চেয়েছি, সেভাবেই হয়েছে। শুধু মাঠে গিয়ে খানিকটা সময় কাটানো দরকার ছিল।’ শুরুতে আফগানদের উদ্বোধনী জুটি দ্রুত রান তুললেও মাঝপথে রাশ টেনে ধরেন বাংলাদেশের বোলাররা। এ জন্য কৃতিত্বটা বোলারদের দিচ্ছেন সাকিব, ‘আসরজুড়েই বোলাররা ভালো বোলিং করে গেছে আর ফিল্ডাররাও যথাসাধ্য চেষ্টা করে গেছে। বেশির ভাগ সময়ই আমাদের ডুবিয়েছে ব্যাটসম্যানরা। এই জয় ফাইনালে যাওয়ার আগে আমাদের অনুপ্রেরণা দেবে আর আত্মবিশ্বাস জোগাবে।’ তবে সাগরিকার সঙ্গে মিরপুরের তফাতটা মাথায় রেখেই কথাটা বলেছেন সাকিব, ‘মিরপুরের কন্ডিশনটা ভিন্ন হবে। সেটা একেবারেই নতুন একটা ম্যাচ। আফগানরা ভালো দল। তাইতো তারা র‌্যাংকিংয়ে সাতে, আমাদের ওপরে।’

ফিল্ডিং করার সময় বাঁ পায়ের হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন রশিদ খান। ফিরে এসে বল করেছেন, উইকেটও নিয়েছেন; কিন্তু আগের মতো দুর্ধর্ষ মনে হয়নি তাঁকে। ইনিংসের ১৮তম ওভারে, তাঁর বলেই তো ১৮ রান নিলেন মোসাদ্দেক ও সাকিব। ফাইনালের আগে সুস্থ হয়ে উঠবেন, এমন প্রত্যাশাই করছেন এই লেগ স্পিনার, ‘হ্যামস্ট্রিংয়ে খানিকটা সমস্যা করছে, আশা করি দু-এক দিনের মধ্যেই ঠিক হয়ে যাবে। এখনো জায়গাটা একটু আড়ষ্ট হয়ে আছে। আসলে মাঠে নেমে দেখতে চাচ্ছিলাম বোলিং করা যায় কি না। ৫০ থেকে ৬০ শতাংশ ঠিক আছি, বাকিটা সমস্যা করছে। মাঠে ফেরার সেটাই ছিল পরিকল্পনা।’ বিনা উইকেটে ৭৫ থেকে ১৩৮ রানে গুটিয়ে যাওয়া, এখানেই ম্যাচটি ফসকে গেছে বলে মনে করেন আফগান অধিনায়ক। তবে হারের জন্য খুব একটা আক্ষেপ নেই তাঁর, ‘আমরা একসঙ্গে খুব বেশি উইকেট হারিয়েছি, তাও ম্যাচের খুব গুরুত্বপূর্ণ সময়ে। ভাগ্য ভালো যে এটা গ্রুপ পর্বেই ঘটে গেল। আমাদের আবার নতুন করে শুরু করতে হবে আর একদম মৌলিক পাঠগুলো ফাইনালের আগে ফের ঝালিয়ে নিতে হবে।’

ম্যাচ-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রতিনিধি হয়ে এসেছিলেন মোসাদ্দেক হোসেন। তাঁর কণ্ঠেও ফাইনালে ভালো করার আত্মবিশ্বাস। সেই সঙ্গে মনে করেন, খানিকটা হলেও কাটিয়ে ওঠা গেছে রশিদ ফ্যাক্টর, ‘চোট নিয়ে ফিরে এসেও কিন্তু রশিদ উইকেট নিয়েছে। আমাদের একটা ওভারে সুযোগ নিতেই হতো, সেটাই ১৮তম ওভারে গিয়ে নিয়েছি, ঝুঁকিটা কাজে লেগেছে।’ আফগানদের বিপক্ষে

জয়ের পর আত্মবিশ্বাসের পালে লাগা নতুন হাওয়াটা টের পাচ্ছেন মোসাদ্দেক, ‘এই ম্যাচটি জিতে আমরা আকাশে উঠে যাইনি আবার হারলেও মাটিতে পড়ে যেতাম না। তবে এই জয় নিশ্চিতভাবেই আমাদের আত্মবিশ্বাস জোগাবে। শেষ দুটি ম্যাচে আমরা ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলেছি। ফাইনালে এভাবে খেলতে পারলে সিরিজ জেতা কঠিন কিছু নয়।’ আয়ারল্যান্ডে মোসাদ্দেকের ব্যাটেই ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজ জিতে ফাইনালে হারের বৃত্ত ভেঙেছিল বাংলাদেশ। এবার দেশের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজ জয়ের স্বপ্ন দেখছেন এই অলরাউন্ডার, ‘ফাইনালে যেকোনো কিছুই হতে পারে। তবে (একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে) জিতে ফাইনালে খেলতে নামলে সেটা বাড়তি আত্মবিশ্বাস দেয়।’

ফাইনালে পা রাখা হলো, আফগানদের বিপক্ষে জয়ও এলো। কিন্তু উদ্বোধনী জুটির রানখরা ঘুচল না।

কমল না ক্যাচ ফেলার পুরনো রোগও। তাই ফাইনালে খেলার তৃপ্তির আড়ালে ভাবাচ্ছে এই প্রশ্নগুলোও। যে উত্তরগুলো না মিললে ফাইনালের গল্পটা এই ম্যাচের মতো নাও হতে পারে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT