রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

সোমবার ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
◈ পাওনা টাকা চেয়ে অপমানিত হওয়ায় অভিমানে গৃহবধুর বিষপানে আত্মহত্যা ◈ আবরার হত্যার বিচারকার্য দ্রুত সম্পন্ন করা হোক : ◈ গৌরীপুরে পিইসি পরীক্ষায় অনুপস্থিত ৩৯৭ শিক্ষার্থী ◈ বকশীগঞ্জে পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের নামে যুবলীগ নেতার চাঁদাবাজী! ◈ কেশরহাট পৌর আওয়ামীলীগের জরুরী সভা,ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সাহিন ◈ দুপচাঁচিয়ায় রাজনৈতিক সংস্কার ও সচেতনতা সৃষ্টির র লক্ষ্যে গোলটেবিল নাগরিক সংলাপ ◈ মোহনগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসানকে সংবর্ধনা ◈ রংপুর সদর উপজেলা আ’লীগের কবির সভাপতি,হালিম সম্পাদক ◈ এমপি মানিকের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করায় নুরুল হুদা মুকুটকে আ’লীগ থেকে বহিষ্কারের দাবি ◈ সীতাকুন্ডের ভাটিয়ারী ইউনিয়ন আ’লীগের কাউন্সিল সম্পন্ন, সভাপতি নাজিম সম্পাদক জসিম

প্রলঙ্করী ঘূর্ণিঝড়ের আশঙ্কা

প্রকাশিত : ০৭:৫৬ পূর্বাহ্ণ, ৭ নভেম্বর ২০১৯ বৃহস্পতিবার ১৯ বার পঠিত

অনলাইন নিউজ ডেক্স :
alokitosakal

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আকস্মিকভাবে গতিপথ পরিবর্তন করেছে। আন্তর্জাতিক ঘূর্ণিঝড় ও সাইক্লোন পর্যেবেক্ষণকারী সংস্থা ‘সাইক্লোকেন’ প্রকাশিত সর্বশেষ তথ্য মতে, ক্রমশ আরো শক্তিশালী রূপধারণ করে ঘূর্ণিঝড়টি সরাসরি ধেয়ে আসছে বাংলাদেশের উপকূলের দিকে।

বৃহস্পতিবার (৭ নভেম্বর) আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা ডাউন টু আর্থ ম্যাগাজিন প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়।

এদিকে সাইক্লোকেনের স্যাটেলাইটভিত্তিক সাইক্লোন ট্র্যাকিং সিস্টেমের সর্বশেষ তথ্য মতে নিজের পূর্ববর্তী অবস্থান থেকে কিছুটা দক্ষিন ও দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চল বরাবর গতিপথ পরিবর্তন করে বাংলাদেশের চট্রগ্রাম অঞ্চলের দিকে ধেয়ে আসছে ‘বুলবুল’। ঘূর্ণিঝড়টি ক্রমশ শক্তি সঞ্চয় করে ৫ম মাত্রার প্রলঙ্করী সাইক্লোনে রুপ নিচ্ছে বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

ভারতীয় আবহাওয়া অধিদপ্তরের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস প্রকাশিত খবরে বলা হয়, প্রাথমিক পর্যায়ে বুধবার (৬ নভেম্বর) সন্ধ্যা বা রাতে ‘বুলবুল’ সাইক্লোনটি ভারতের ওড়িষ্যা-অন্ধ্র উপকূলের পাশাপাশি পশ্চিমবঙ্গের উপকূলবর্তী বেশ কয়েকটি অঞ্চলে আঘাত হানাতে পারে বলে ধারণ করা হয়। কিন্তু এটি আকস্মিকভাবে গতিপথ পরিবর্তন করে বাংলাদেশের দিকে অগ্রসর হচ্ছে।

• ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর বর্তমান অবস্থান

১৩.৪° উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৯.৩°পূর্ব দ্রাঘিমাংশের কাছাকাছি। মায়া বান্দার উপকূলবর্তী অঞ্চল থেকে প্রায় ৩৯০ কিলোমিটার পশ্চিম-উত্তর-পশ্চিম,পারাদ্বীপের উপকূল থেকে ৮১০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পূর্ব এবং সাগর দ্বীপপুঞ্জের ৯২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পূর্বে এবং বাংলাদেশের উপকূলবর্তী খেপুপাড়া অঞ্চল থেকে ৯২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছে ‘বুলবুল’।
ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর প্রাথমিক গতিপথ- ছবি: স্কাইমেট ওয়েদার

• ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর প্রভাবে আগামী কয়েকদিনের আবহাওয়া পরিস্থিতি:

আন্তর্জাতিক আবহাওয়া পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা স্কাইমেট ওয়েদারের তথ্য মতে, শুক্রবারের (৮ নভেম্বর) মধ্যে মধ্যে ঘূর্ণিঝড়টির গতিবেগ ঘন্টায় ৭০ থেকে ৮০ মাইলে উন্নিত হবে বলে ধারনা পাওয়া যায়। যা সর্বোচ্চ ৯০ মাইলেও পৌঁছাতে পারে। সন্ধ্যা বা রাত নাগাদ বুলবুল ভারতের উড়িষ্যা ও পশ্চিমবঙ্গে খানিকটা প্রভাব বিস্তার করে বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলের দিয়ে ধেয়ে যাবে।

আগামী রোববার (১০ নভেম্বর) বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হানতে পারে ‘বুলবুল’। এর সম্ভাব্য গতিবেগ ঘন্টায় ৮০ থেকে ৯০ মাইলে উঠবে। যা সর্বোচ্চ ১০০ মাইলেও উঠতে পারে। বাংলাদেশে আঘাত হানার সময় এর গতিবেগ আরো বেড়ে যাবে। ১০ নভেম্বর ভোর সাড়ে ৫টার দিকে এটি বাংলাদেশ উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে ‘বুলবুল’ ।

আজ বিকালে বাংলাদেশের আবহাওয়া অধিদপ্তরের আগামী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে থাকা নিম্নচাপটি সামান্য পশ্চিম-উত্তর পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়েছে। সকাল নয়টার দিকে একই এলাকায় থাকা এ নিম্নচাপ গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এটি আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে,পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় দেশের উপকূলীয় অঞ্চলের দু-একটি জায়গায় হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। দেশের অন্যত্রও এর প্রভাবে আকাশ মেঘলা থাকবে।
ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর পরিবর্তিত গতিপথ- ছবি: স্কাইমেট ওয়েদার

আবহাওয়া বিশষজ্ঞরা জানিয়েছে,আন্দামান সাগরে সৃষ্টি হওয়া নিম্নচাপ পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে এসে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে। তারপর তা রূপান্তরিত হবে ঘূর্ণিঝড়ে। সাত নম্বর ঘূর্ণিঝড় হবে ‘বুলবুল’ এ বছর আরব সাগর বা বঙ্গোপসাগরে মোট ছয়টি ঘূর্ণিঝড় তৈরি হয়েছে। এবার সপ্তম ঘূর্ণিঝড়ে রূপান্তরিত হওয়ার আগে বঙ্গোপসাগরে বাসা বেঁধেছে নিম্নচাপ। অভিমুখ বাংলা ও ওড়িষ্যা-অন্ধ্র উপকূলের দিকে।

এ অঞ্চলে ২০১৮-র রেকর্ড ভেঙে যেতে পারে ২০১৮ সালে মোট সাতটি ঘূর্ণিঝড় তৈরি হয়েছিল। এই বছর নভেম্বর মাসের মধ্যেই ওই সংখ্যাকে ধরে ফেলবে ২০১৯-এ সৃষ্টি হওয়া ঘূর্ণিঝড়। এখনও প্রায় দু’মাস বাকি বছর শেষ হতে। ফলে ঘূর্ণিঝড়ের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণেই এত সংখ্যক ঘূর্ণিঝড় সৃষ্টি হচ্ছে সাগরে। বৈশ্বিক জলবায়ু বিপর্যয়ের প্রভাবে একের পর প্রাকৃতিক দুর্যোগে বিপর্যস্তভ হচ্ছে পৃথিবী।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT