রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

সোমবার ১৭ মে ২০২১, ৩রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

০৪:২৯ অপরাহ্ণ

শিরোনাম
◈ ঈদ প্রীতি ফুটবল ম্যাচ,বড় দল বনাম ছোট দল, বিশেষ আকর্ষণ দেশের দ্রুত তম মানব ইসমাইল ◈ বিরলে শেখ হাসিনা’র স্বদেশ-প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে যুবলীগের দোয়া ও খাদ্য বিতরণ ◈ বুড়িচং উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের মতবিনিময় সভা অনষ্ঠিত ◈ মতিন খসরু’র স্মরণ সভা ও পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠিত ◈ স্ত্রী কানিজ ফাতিমা হত্যায় আটক সেনা সদস্য স্বামী রাকিবুলের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন ◈ বাঁশখালীতে বেড়াতে আসা তরুণীকে ধর্ষণ করে আবারো আলোচনায় সেই নূরু ◈ ছাগলনাইয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মেজবাহ্ উদ্দিন আহমেদ এর বিদায় সংবর্ধনা ◈ বাঁশখালীতে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করায় ড্রেজার মেশিন জব্দ ◈ বাঁশখালী সাধনপুরে কাঁদায় দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত ◈ নবীনগর বিটঘরে কাল বৈশাখীর ঝড়ে গাছের ডাল পড়ে বৃদ্ধের মৃত্যু

পেঁয়াজের লাগাম টানতে মাঠে শুল্ক গোয়েন্দারা

প্রকাশিত : ০৫:৪১ AM, ২৫ নভেম্বর ২০১৯ সোমবার ১৫৯ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

দেশে নিয়মিত আমদানি হচ্ছে পেঁয়াজের। গত তিন মাসে অন্তত ১৬৭ হাজার টন পেঁয়াজ এসেছে দেশের বাজারে। তবু কমছে না পেঁয়াজের দাম। অধিকাংশের ধারণা, কৃত্রিম সংকট সৃষ্টিকারী অসাধু ব্যবসায়ীদের কারণে নিয়ন্ত্রণহীন পেঁয়াজের বাজার। তাই প্রায় ৩৩২ পেঁয়াজ আমদানিকারকের বিস্তারিত তথ্য-উপাত্ত নিয়ে মাঠে নেমেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) আওতাধীন শুল্ক গোয়েন্দা ও অধিদফতর। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

এদিকে পেঁয়াজ, চাল, ডাল, তেল, চিনিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় ভোগ্যপণ্যের সঠিক চাহিদা নিরূপণে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারত্বের ভিত্তিতে নতুন সমীক্ষা চালানোর ঘোষণা দিয়েছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই। গতকাল রোববার রাজধানীর মতিঝিলে ফেডারেশন ভবনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয়, কৃষি মন্ত্রণালয়, শিল্প মন্ত্রণালয়, ট্যারিফ কমিশন, প্রতিযোগিতা কমিশনসহ সরকারের বেশ কয়েকটি সংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ কথা জানান এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম। তবে কেন সম্প্রতি পেঁয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গেল, এর পেছনে কোনো পক্ষ জড়িত আছে কি নাÑ এই বৈঠক থেকে এসব প্রশ্নের কোনো উত্তর বের হয়নি।

সূত্র জানায়, শুল্ক গোয়েন্দা এবং অধিদফতর আমদানি করা পেঁয়াজ ও বাজারে সরবরাহ ইত্যাদি তথ্য-উপাত্ত খতিয়ে দেখা শুরু করেছে। বাংলাবান্ধা, বেনাপোল, ভোমরা, হিলি, সোনামসজিদ, টেকনাফ, চট্টগ্রাম ও ঢাকা কাস্টম হাউস দিয়ে চলতি বছরের আগস্ট থেকে ১৮ নভেম্বর পর্যন্ত পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে ১৬৭ হাজার ৮০৬ দশমিক ৪৭ টন। তার পরও অতিরিক্ত মূল্যের লাগাম টেনে ধরা যাচ্ছে না। প্রকৃত কারণ খতিয়ে দেখতে এরই মধ্যে ৪০ আমদানিকারককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছে শুল্ক গোয়েন্দা। তাদের মধ্যে ১৩ আমদানিকারককে আজ সোমবার এবং ২৭ আমদানিকারককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে কাল মঙ্গলবার। তলব করা চিঠিতে বলা হয়েছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির উদ্দেশ্যে আমদানি করা পেঁয়াজ অবৈধভাবে মজুদ করা হয়েছে। এ ছাড়া রয়েছে মানিলন্ডারিংয়েরও অভিযোগ। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ছক মোতাবেক আমদানি করা পেঁয়াজের বিস্তারিত তথ্যসহ উপস্থিত হয়ে বক্তব্য দেওয়ার জন্য অনুরোধ করা গেল।

এ বিষয়ে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদফতরের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, দেশে নিয়মিত আমদানি হচ্ছে পেঁয়াজ। তাই বাজারে পেঁয়াজের কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির মাধ্যমে যেসব ব্যবসায়ী একটি অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরির চেষ্টা করেছে, মূলত তাদের চিহ্নিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

এদিকে, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্যানুসারে দেশে পেঁয়াজের উৎপাদন ও চাহিদার মধ্যে ফারাক মাত্র দুই লাখ টনের মতো। বছরে দেশে পেঁয়াজ হয় ২৩ লাখ টনের ওপর। আর চাহিদা রয়েছে ২৪ থেকে ২৫ লাখ টনের। তারপরও শুধু নষ্ট হওয়ার কারণে বছরে আট থেকে দশ লাখ টন আমদানি করা হয়। কারণ দেশে উৎপাদিত ৩০ থেকে ৩৫ শতাংশ পেঁয়াজ সংরক্ষণের অভাবে নষ্ট হয়।

কাস্টমস কর্মকর্তাদের দাবি, চাহিদা অনুযায়ী যথেষ্ট পেঁয়াজ মজুদ ছিল। কোনোভাবেই পেঁয়াজের সংকট হওয়ার কথা নয়। কিন্তু অসাধু ব্যবসায়ীদের গুদামে বিপুল পরিমাণ পেঁয়াজ আটকা পড়ে থাকায় বাজার অস্থিতিশীল হয়ে পড়ে। অতি মুনাফার লোভে এক শ্রেণির ব্যবসায়ী কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করেন। আবার কয়েকজন আমদানিকারক নিজেরা বিশেষ সিন্ডিকেট গড়ে তোলেন। গুদামে পেঁয়াজ পচে গেলেও তারা বাজারে ছাড়ার উদ্যোগ নেননি। ফলে খুচরা বাজারে পেঁয়াজের কেজি আড়াই শ টাকা ছাড়িয়ে যায়।

জানা যায়, পেঁয়াজের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে বিক্রি বাড়িয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)। রাষ্ট্রায়ত্ত এ সংস্থা আগের চেয়ে ১৫টি স্থান বাড়িয়ে এখন রাজধানীতে ৫০টি স্থানে পেঁয়াজ বিক্রি করছে। এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন বিভাগ ও জেলাপর্যায়ে পেঁয়াজ বিক্রির কার্যক্রম জোরদার করেছে। সাধারণ মানুষের জন্য এই পেঁয়াজ ৪৫ টাকা কেজিতে বিক্রি করা হচ্ছে।

এদিকে গতকাল সরকারের বেশ কয়েকটি সংস্থার প্রতিনিধিদের বৈঠক শেষে বৈঠকের মূল সিদ্ধান্তÑ ‘সরকারি-বেসরকারি পক্ষের অংশগ্রহণে নতুন ইনভেনটরি’ তৈরির এই সিদ্ধান্তকে ‘গতানুগতিক বা সুশীল চিন্তা’ বলে এক সাংবাদিক মন্তব্য করলে এর সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেন এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম। তিনি বলেন, ‘আমি আপনার সঙ্গে দ্বিমত করছি, এগুলো ব্যবসার খুবই প্র্যাকটিক্যাল মেথডলজি। সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে এটা চলমান আছে। এর সঙ্গে বেসরকারি অংশীজনদের যুক্ত করাই আমাদের লক্ষ্য।’

বৈঠকে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার, এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, সিটি গ্রুপের চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান, মেঘনা গ্রুপসহ অন্যান্য আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি ও ঢাকার বিভিন্ন আড়তদার সমিতির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে এফবিসিসিআই সভাপতি ফাহিম বলেন, ‘সিদ্ধান্ত হয়েছে, বাংলাদেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বছরব্যাপী যে চাহিদা আছে, উৎপাদন ও আমদানির সঙ্গে ইনভেন্টরি ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম এবং বিপণনÑ এ বিষয়গুলো যৌথভাবে পাবলিক প্রাইভেট অংশীদারত্বের ভিত্তিতে একটা হিসাবনিকাশ তৈরি করা। এর সঠিক মূল্যায়ন করা যেন ভবিষ্যতে এ ধরনের পণ্যের কখনো অস্বাভাবিক বাজার পরিস্থিতি না দাঁড়ায়।’

বাজারের বর্তমানে পেঁয়াজসহ কোনো পণ্যের সরবরাহে ঘাটতি নেই বলে দাবি করেন এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ, ট্যারিফ কমিশনের সদস্য আবু রায়হান আল বেরুনী। বাজারে নিত্যপণ্যের ন্যায্য?মূল্য কীভাবে নিশ্চিত করা যায়, তা নিয়েও আলোচনা হয় বৈঠকে।

শেখ ফাহিম বলেন, ‘মোটা দাগে একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছেছি, সেটা হচ্ছে একটা সময় বেঁধে দিয়ে কীভাবে একটা সঠিক ব্যবস্থাপনার মধ্যে আনা যায়। ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে কেউ যদি অসাধু ব্যবসায়ী হিসেবে চিহ্নিত হয়, তাহলে এফবিসিসিআই ও বাজার সমিতির মাধ্যমে একটা সঠিক ব্যবস্থা যেন তাদের বিরুদ্ধে নেওয়া হয়।’

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT