রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

১০:২৯ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ ধামইরহাটে সোনার বাংলা সংগীত নিকেতনের বার্ষিক বনভোজন ◈ ধামইরহাটে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ◈ পত্নীতলায় করোনা সচেতনতায় নারীদের পাশে তথ্য আপা ◈ ফুলবাড়ীয়া ২ টাকার খাবার ও মাস্ক বিতরণ ◈ কাতারে ফেনী জেলা জাতীয়তাবাদী ফোরামের দোয়া মাহফিল ◈ হাসিবুর রহমান স্বপন এমপির রোগ মুক্তি কামনায় মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত ◈ দৈনিক আলোকিত সকালের ষ্টাফ রিপোর্টার আশাহীদ আলী আশার ৪৩তম জন্মদিন পালিত ◈ সাবেক সেনা কর্মকর্তা ও ফুটবলার রফিকুল ইসলাম স্মরণে দোয়া ও মিলাদ আজ ◈ লক্ষ্মীপুর জেলার শ্রেষ্ঠ ও‌সির পুরস্কার পে‌লেন ও‌সি আবদুল জ‌লিল ◈ কাতার সেনাবাহিনীর বিপক্ষে বাংলাদেশের পরাজয়
বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক ও বোমা তৈরির সামগ্রী উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জে জঙ্গি অভিযানে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকসহ আটক ৩

প্রকাশিত : ০৯:৫৮ PM, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ Monday ২৩৭ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ
নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় সন্দেভাজন একটি জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক ও বোমা তৈরির সামগ্রী উদ্ধার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। উদ্ধারকৃত বোমার সাথে সম্প্রতি ঢাকায় পুলিশের ওপর হামলায় ব্যবহৃত বোমার মিল পাওয়া গেছে। এখান থেকে তিনজনেক আটক করা হয়েছে। তারা হলেন, আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের যন্ত্রকৌশল বিভাগের শিক্ষক ফরিদউদ্দিন রুমি, তার বাবা বাংলাদেশ ব্যাংকের অবসরপ্রাপ্ত উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম), তাঁর স্ত্রী অগ্রণী ব্যাংকের কর্মকর্তা জান্নাতুল ফোয়ারা ওরফে অনু।
সোমবার (২৩ সেপ্টেম্বর) ভোর থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত ফতুল্লার শিয়াচর এলাকায় জয়নাল আবেদিনের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। গত রোববার রাতে ঢাকা থেকে যন্ত্রকৌশলী জামালউদ্দিন রফিককে (২৩) গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাঁর বক্তব্যের ভিত্তিতে এই অভিযান চালায় বলে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম জানান।
তিনি জানান, আটককৃতরা সবাই নব্য জেএমবি সদস্য। তাদের আরও বেশ কয়েকজন সহকারী আছেন। তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।
মনিরুল ইসলাম বলেন, অভিযানের পর সেখান থেকে উদ্ধার হওয়া টয়গানের (খেলনা অস্ত্র) সঙ্গে আইএসের একটি ভিডিওর তরুণদের হাতে থাকা টয়গানের অনেকটা মিল আছে। কয়েক মাস আগে আইএস এই ভিডিও প্রকাশ করে বলে জানান তিনি। বেলা আড়াইটার কিছু আগে অভিযান শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের একটি দল রোববার রাতে ঢাকা থেকে যন্ত্রকৌশলী জামালউদ্দিন রফিককে গ্রেপ্তার করে। পরে তাঁর বক্তব্যের ভিত্তিতে ফতুল্লার শিয়াচর একটি বাড়ি থেকে তাঁর বড় ভাই আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের যন্ত্রকৌশল বিভাগের শিক্ষক ফরিদউদ্দিন রুমিকে আটক করা হয়।
কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট প্রধান বলেন, বসতবাড়ি থেকে আটকের পর তাদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, একই এলাকায় তাদের আরেকটি পরিত্যক্ত টিনশেড বাড়িতে গোপনে জঙ্গি কার্যক্রম পরিচালিত হয়ে থাকে। পাশাপাশি বাড়িটিতে বোমা তৈরির ল্যাব আছে এবং ওইখানে বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক দ্রব্য ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম মজুদ আছে। পরে তাদের দেয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ওই বাড়িতে বোমা বিশেষজ্ঞ দল ও রোবট পাঠিয়ে পর্যবেক্ষণ করে এর সত্যতা পাওয়া যায়।
কাউন্টার টেররিজম ইউনিট ভোর রাতে সেখানে পৌঁছায়। বাড়িতে পৌঁছে তারা বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক ও বোমা তৈরির সামগ্রীর আলামত পায়। এখন সেগুলো উদ্ধার করে ধ্বংস করার জন্য কাজ করে বোমা নিষ্ক্রিক্রয়কারী দলের সদস্যরা। বাড়িটিতে চারটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। সেখানে কেউ না থাকায় কোনও হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।
দুপুর ১২ টা ৫৮ মিনিটে ওই বাড়ি থেকে প্রথমে একটি বোমা বিস্ফোরণের বিকট শব্দ পাওয়া যায়। দুপুর ১টা ১০ মিনিটে আরও একটি বোমা বিস্ফোরণের ভয়াবহ বিকট শব্দে পুরো এলাকা কেঁপে উঠে। এরপর দুপুর ১টা ২৪ মিনিটে তৃতীয়টি এবং ২টা ৯ মিনিটে সর্বশেষ বোমাটি বিস্ফোরণের মধ্য দিয়ে উদ্ধারকৃত বোমাগুলো নিষ্ক্রিয় করা হয়।
তিনি জানান, এর আগে রাজধানীতে পাঁচটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে যেসব বিস্ফোরক দ্রব্য পাওয়া গেছে এই অভিযানে একই আলামত মিলেছে।
ওই বাড়ির মালিক জয়নাল আবেদিন বাংলাদেশ ব্যাংকের অবসরপ্রাপ্ত একজন উপমহাব্যবস্থাপক (ডিজিএম), তাঁর দুই ছেলে ফরিদউদ্দিন রুমি ও জামালউদ্দিন রফিক এবং ফরিদউদ্দিনের স্ত্রী অগ্রণী ব্যাংকের কর্মকর্তা জান্নাতুল ফোয়ারা ওরফে অনুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে।
এর আগে শিয়াচর এলাকায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে একটি বাড়ি ঘিরে রাখে পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট ও সোয়াত সদস্যরা। গতকাল সোমবার মধ্যরাত থেকে বাড়িটি ঘিরে রেখেছে বলে গণমাধ্যমকে সকালে নিশ্চিত করেন ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ আসলাম হোসেন।
পরে জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) আবদুল্লাহ আল মামুন গণমাধ্যমকে জানান, জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে জয়নাল আবেদীনের একটি টিনশেড বাড়ি ঘিরে রাখে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সদস্যরা। কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের সদস্যদের সাথে জেলা পুলিশের সদস্যরাও সহযোগিতা করছে।
এদিকে, আইন শৃংখলা বাহিনীর এই অভিযানের ব্যাপারে এলাকাবাসী বলেন, এই পরিবারের সদস্যরা জঙ্গিবাদের সাথে জড়িত আছে তা কেউই জানতেন না। তারা উচ্চ শিক্ষিত পরিবার হিসেবেই এলাকায় সুপরিচিত আছেন। তবে নতুন করে জঙ্গি হিসেবে তাদের পরিচয় প্রকাশ পাওয়ায় বিষয়টি এলাকাবাসীকে ভাবিয়ে তুলেছে। আতংকিত হয়ে পড়েছেন তারা।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT