রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শনিবার ০৪ জুলাই ২০২০, ২০শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

১১:৫৬ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ মেধাবীদের আরো একবার সংবর্ধিত করলো গোপালপুর উচ্চ বিদ্যালয় এ্যালামনাই ◈ নাটোরের লালপুরে পদ্মা নদীতে মহিলার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার ◈ রাজশাহীতে সাংবাদিকের সঙ্গে পুলিশ কনস্টেবলের মারমুখী আচরণ ◈ ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন করোনায় আক্রান্ত সবার কাছে দোয়া কামনা ◈ ১৪ দিনের জন্য লকডাউন চবি ক্যাম্পাস ◈ গঙ্গাচড়ার তিস্তায় নৌকাডুবি অল্পের জন্য বেঁচে গেল কয়েকটি প্রাণ ◈ মোংলা অনলাইন প্রেস ক্লাবের যাত্রা শুরু ইয়াছিন সভাপতি, আজিজ সম্পাদক ◈ মেহেরপুর শহরে নতুন আরো ৭ জন করোনায় আক্রান্ত ◈ সুন্দরবনকে দস্যু মুক্ত করতে বাগেরহাট জেলা পুলিশের অভিযান শুরু ◈ সিরাজগঞ্জে দেড় লক্ষাধিক মানুষ পানি বন্দি

নাটোরে আবারো বেড়েছে পেঁয়াজের দাম

প্রকাশিত : ০৫:৫১ PM, ৩ মার্চ ২০২০ Tuesday ৯৩ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

সৈয়দ মাসুম রেজা, নাটোর প্রতিনিধিঃ নাটোরের নলডাঙ্গায় অস্থির পেঁয়াজের বাজার। এক সপ্তাহ আগে কেজিপ্রতি ৭০ থেকে ৮০ টাকা দরে বিক্রি হওয়া পেঁয়াজ গত শনিবার বিক্রি হয়েছে গড়ে ৪০ টাকা কেজি দরে। আজ মঙ্গলবার সকালে এই মূল্য বেড়ে দাঁড়িয়েছে গড় ৫০ টাকায়। ব্যবসায়ী ও আড়তদাররা বলছেন আমদানি কম হওয়ায় দাম বেড়েছে।

প্রতি শনি ও মঙ্গলবার সকালে নলডাঙ্গা হাট এর একটি বড় অংশ জুড়ে বসে এই পেঁয়াজের হাট। এখান থেকে পেঁয়াজ দেশের বিভিন্ন স্থানে চলে যায়। প্রতি হাটে গড়ে ২০ ট্রাক পেঁয়াজ এখান থেকে ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় রপ্তানি করা হয়। গত কয়েক মাস ধরে পেঁয়াজের অব্যাহত মূল্যবৃদ্ধিতে এই আমদানি কমে ৫ থেকে ৭ ট্রাকে এসে দাঁড়িয়েছিল। এক সপ্তাহ আগেও ভরা মৌসুমে এখানকার পেঁয়াজের বাজার ছিল চড়া। ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির খবর শুনেই হঠাৎ করেই বাজারে ধ্বস নেমেছিল। পেঁয়াজের বাজারে দরপতনের কারণে আজকে বেশিরভাগ কৃষক বাজারে পেঁয়াজ তোলেনি। যার প্রভাব পড়েছে আজকের বাজারে।

কৃষকরা বলছে তাদের উৎপাদন খরচ বেশি হওয়ায় এই বাজার স্বাভাবিক। এবারে পেঁয়াজ বীজ কিনতে হয়েছে চড়ামূল্যে সে দিক থেকে স্যার শেষ কীটনাশক বিষ মিলে তাদের উৎপাদন খরচ বিঘাপ্রতি ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা পড়েছে। অপরদিকে এক বিঘা জমিতে ৬০ থেকে ৭০ মণ পেঁয়াজ উৎপন্ন হয়। এর চেয়ে দাম কমে গেলে আবারো তাদের লোকসানের মুখে পড়তে হবে।

অপরদিকে ভোক্তারা বলছেন, পেঁয়াজের মূল্য কেজি প্রতি ৪০ থেকে ৫০ টাকার মধ্যে থাকলে সকল শ্রেণীর ভোক্তাই উপকৃত হবে।

আড়তদারের মতে, পেঁয়াজের বাজারে এই অস্থিরতা ব্যবসায়ীদের ক্ষতিগ্রস্ত করে। আর ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হলে কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাই বাজার নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা থাকলে এইরকম পরিস্থিতির মোকাবেলা করতে হয়না ব্যবসায়ী এবং কৃষকদের। এবার নাটোর জেলায় পেঁয়াজ চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে চার হাজার হেক্টর জমিতে।

কিন্তু কৃষি বিভাগ বলছে এই উৎপাদন ৬ হাজার হেক্টর ছাড়িয়ে গেছে। এতে ৬০ হাজার মেট্রিকটন পেঁয়াজ উৎপাদন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের এখন উপযুক্ত সময়। তা না হলে আবারো পেঁয়াজের ঝাঁজে নাকাল হবে গোটা দেশবাসী।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT