রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শনিবার ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

১১:২২ অপরাহ্ণ

শিরোনাম
◈ মুক্তি পাওয়ার সাথেই সোশাল মিডিয়ার ব্যাপক সাড়া ধামইরহাটের কণ্ঠশিল্পী জাহাঙ্গীরের গানে ◈ ইনাতগঞ্জ পল্লী চিকিৎসক সমিতির আয়োজনে বিশ্ব করোনাকালীন সচেতনতা ও স্বাস্থ্য বিষয়ক কনফারেন্সে অনুষ্ঠিত ◈ নজিপুর ইজি বাইক কল্যাণ সমিতির   বার্ষিক বনভোজন ◈ গোপালগঞ্জে দোলা পরিবহন নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ভয়াবহ দুর্ঘটনা ◈ মিম হত্যা বিচারের দাবীতে পত্নীতলায় মানববন্ধন ◈ ধামইরহাটে সোনার বাংলা সংগীত নিকেতনের বার্ষিক বনভোজন ◈ ধামইরহাটে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ◈ পত্নীতলায় করোনা সচেতনতায় নারীদের পাশে তথ্য আপা ◈ ফুলবাড়ীয়া ২ টাকার খাবার ও মাস্ক বিতরণ ◈ কাতারে ফেনী জেলা জাতীয়তাবাদী ফোরামের দোয়া মাহফিল

নতুন বউ নিয়ে মাটির ঘরে

প্রকাশিত : ০৫:৩২ AM, ১৫ অগাস্ট ২০১৯ Thursday ৩৮৩ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

অবশেষে নববধুর পদার্পন বাপ-দাদর স্মৃতিবিজড়িত পুরনো মাটির ঘরে। ভেবেছিলাম নাক সিটকিয়ে ভুরু কুঁচবে বলবে, তুমি তো বলেছিলে আমার জন্য পাকাঘর বানানো হয়েছে। এখন তো দেখি সেই পুরনো মাটির ঘরই। নাহ, কিছু বলব না। চোখে-মুখে নতুন স্বপ্ন ছাড়া তেমন কোনো প্রতিচ্ছবি দেখলাম না।

একটু পরে আতঙ্কিতভাবে নিয়ে আমার দিকে তাকালো নববুধূ, যখন কেউ একজন ভেজা কাঁথা মুগিয়ে নতুন বউ বরণ করতে এলো। পরক্ষণে দেখলাম, ভয় কেটে গেল ওর। যখন নানি চিৎকার করে কাঁথাসহ ওই মহিলাকে সরিয়ে দিলেন।

নতুন বউ উপস্থিত আবালবৃদ্ধাবনিতার পায়ে হাত দিয়ে সালাম করে নির্ধারিত স্থানে বসতেই কানে-কানে বললাম কী ব্যপার,একবারে বুয়াদেও পদধ্বনি নিলা? বউ কিছুটা আবাক হয়ে বলল, মা তো বলেছেন শ্বশুরবাড়ির মুরুব্বি দেখতে সবাইকে সালাম করতে হবে। আমার সশব্দ হাসি। সেই হাসির দমকায় অন্যরাও হাসলো বেশ। জানতে চাইল ভেজা কাঁথা দিয়ে একজন চেপে ধরতে চাইলো কেন? আমিও ব্যাপারটা বুঝিনি।

এমন সময় নানি উচ্চস্বরে বলে উঠলো নববূকে ভেজা কাঁথায় মুড়িয়ে ঘরে টুকরে সেই বউয়ের ধৈর্যসহ্যগুণ বেড়ে যায়। এমন বিশ্বাস আর কি। তুমি বিদেশি মেয়ে বলে আমি ওটা করতে দিই নি। বললাম, বেঁচে গেলে তো বেশ !

দুইদিন পর বৌভাত। এসি বাসে ঢাকা থেকে শ্বশুরপক্ষের বসাই আসলো। গ্রামের চারদিকে হইচই বিদেশি বউয়ের বাপেরগুষ্ঠি আসেছে উৎসুক দৃষ্টিতে দেখছে সবাই আগত অতিথিদের। বাড়ির মা খালা চাচিরা বিদেশি বেয়াইন দেখতে এসেছেন লাইন ধরে। একথা সে কথা। তার মধ্যে একটি কথাই সবার মুখে বাববার বেয়াইন গম আচন্নি? বেইয়ান তো ভারি চিন্তিত, কিছুটা বিচলিতও বটে।

ছোটা ছেলেকে কাছে ডেকে বললেন বাবা খাট-পালংক আলমিরা ড্রেসিং টেবিল, শাড়ি-শহনা সব দিলাম, কিন্তু সামন্য জিনিস গমটা দিলাম না। এখানে তো সবাই বালাবলি করছে গম দেইনি কেনো ? গম কোথায় পাওয়া যাবে এখানে ?। আশপাশে কোন বাজার আছে কি না । আমি তো আবাক। জানতে চাইলাম বৌভাতে অনুষ্ঠান, এখানে ওনার গমের দরকার হচ্ছে কেনো ?। কানের কাছে ফিসফিস করে বললেন এখানে সাবাই নাকি বিয়েতে উপহার হিসেবে গম দেওয়া হয়নি কেনো মার কাছে জানতে চাচ্ছে ! আমি আরও আবাক ! বলেন কি ? কে এসব বলছে! একে –কে জিগ্যেস করতে আসল ঘটনা বেড়িয়ে এলো।

হাসতে হাসতে ছোটভাইকে বললাম এই গম সেই গম না। চট্টগ্রামের আঞ্চলিক শব্দ গম- এর অর্থ হচ্ছে ভালেঅ আচন্নি মানে আছেন তো। ও বেয়াইন গম আচন্নির অর্থ হলো মার কাছে সবাই জানতে চাচ্ছেন উনি ভাল আছেন কি না। ইংরেজীতে সেটাকে বলি হাউ আর ইউ।

লেখক: সৈয়দ নুরুল ইসলাম,চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী (ওয়েল গ্রুপ অব)

চলবে

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT