রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

বৃহস্পতিবার ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৪ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

০৪:৩৪ পূর্বাহ্ণ

ধর্ম ও বিয়ে নিয়ে অপুর খোলামেলা সাক্ষাৎকার

প্রকাশিত : ০৭:১৯ AM, ২ অক্টোবর ২০১৯ Wednesday ২০৪ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

শাকিব খান-অপু বিশ্বাস। চলচ্চিত্রের পর্দায় তাদের জুটি সফলতা পেলেও বাস্তব জীবনে জুটি হিসেবে ব্যর্থ। ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল গোপনে বিয়ে করেন শাকিব-অপু। দীর্ঘ আট বছর গোপনে সংসার করার পর অপুর কোলজুড়ে আসে পুত্র আব্রাম খান জয়। জয়কে নিয়ে গণমাধ্যমে হাজির হন অপু বিশ্বাস। এর পর শাকিব খান-অপু বিশ্বাসের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আসে। শুধু তাই নয়, অপুকে ডিভোর্স লেটার পাঠান শাকিব। তারপর দীর্ঘ আলোচনা-সমালোচনার মধ্য দিয়ে তাদের বিবাহবিচ্ছেদ ঘটে।

‘অপু বিশ্বাস ধর্মান্তরিত হননি, তিনি হিন্দু ধর্ম অনুযায়ী চলছেন’— এই খবর কয়েক দিন ধরে টক অব দ্য কান্ট্রি। এরপর শুরু হয় ‘বিয়ে করছেন অপু বিশ্বাস’। এই খবর রীতিমতো আগুনে ঘি ঢালার মতো। তাও আবার অন্য কেউ নন, চিত্রনায়ক বাপ্পিকে বিয়ে করছেন অপু! এসব বিষয় নিয়ে রাইজিংবিডির সঙ্গে খোলামেলা কথা বলেছেন অপু বিশ্বাস।

প্রশ্ন : অপু বিশ্বাস বিয়ে করছেন— এমন গুঞ্জন শোবিজে উড়ছে।

অপু বিশ্বাস: বিয়ের বিষয়টি পুরোপুরি মিথ্যে এবং বানোয়াট। আমি একজন সিঙ্গেল মাদার। আমার বয়সও খুব একটা হয়নি। স্বাভাবিক কারণে বিয়ের বিষয়ে পরিবারে এক ধরণের আলোচনা হচ্ছে। কিন্তু পরিবারের কেউ আমার সামনে এসব কথা বলতে পারেন না। আমাকে বললে এগুলো বাদ দিতে বলি। কিন্তু অগোচরে এগুলো বলেন। বিষয়টি নিয়ে এক সাংবাদিককে বলেছিলাম—এই ধরণের কথাবার্তা হয় কিন্তু আমি প্রস্তুত নই। এরপর তিনি তারমতো করে সংবাদ প্রকাশ করেন।

প্রশ্ন : বিয়ে নিয়ে আপনার পরিকল্পনা কী?

অপু বিশ্বাস: বিয়ের বিষয়টা ভবিষ্যৎ বলে দিবে, তবে এখনই করছি না। যে নিউজ হয়েছে সেটা পুরোপুরি ভুল।

প্রশ্ন : চিত্রনায়ক বাপ্পিকে জড়িয়ে বিয়ের গুঞ্জন এর আগেও উঠেছিল। এবারো নতুন করে ওঠেছে। বিষয়টি কীভাবে দেখছেন?

অপু বিশ্বাস: একসঙ্গে সিনেমা করার কারণে হয়তো এই গুঞ্জন উঠেছে। এটা অশিক্ষিত, হীন মন-মানসিকতার মানুষের কাজ। ক্যারিয়ারে বাপ্পি আমার অনেক জুনিয়র। বিয়ের বিষয়টা বাপ্পিকে নিয়ে মাঝে মাঝে আসছে। এটা নিয়ে আমি নিজেও খুব বিরক্ত। আবার আমাদের ‘শ্বশুর বাড়ি জিন্দাবাদ’ সিনেমাটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এর সঙ্গে বিয়ে বিষয়টি সম্পৃক্ত। আমি মনে করি, এতে করে আমাদের ইতিবাচক একটি প্রচারণা হয়ে যাচ্ছে।
প্রশ্ন : ধর্ম নিয়ে কথা ওঠেছে। আপনি ধর্মান্তরিত হননি, হিন্দু ধর্ম অনুযায়ী চলছেন…

অপু বিশ্বাস: আমি আমার বিয়ের ব্যাপারটা একদম গোপন রেখেছিলাম। এর কারণ আমি সিনেমা করতাম এবং আমার এক্স হাজবেন্টও সিনেমা করতেন। তখন চলচ্চিত্রে আমাদের পিক টাইম চলছিল। আমি চাইনি, প্রযোজকরা সিনেমায় অর্থ লগ্নী করে লোকসানের মুখে পড়ুক। সেজন্য অগোচরে সংসার করতাম। একটা পর্যায়ে এসে বিয়ের কথা বলতে হয়েছে। আমার যখন বাচ্চা আসে তখনো কিন্তু আড়ালে ছিলাম। যখন সময় ও সুযোগ এসেছে তখন আমার সন্তানকে সবার সামনে এনেছি। আমি বিবাহিত তা প্রকাশ করেছি। সে হিসেবে আমি মুসলিম পরিবারের বউ। এটা পরিষ্কার ছিল। নামাজ, রোজা অর্থাৎ ইসলাম ধর্মের প্রতি সম্মান আজও আমার আছে, তখনো ছিল।

প্রশ্ন : তখন গণমাধ্যমে বলেছিলেন, আপনি নামাজ-রোজা পালন করছেন। এটা কেন বলেছিলেন?

অপু বিশ্বাস: আমি নামাজ পড়ি, রোজা রাখি— এসব কথা গণমাধ্যমে বলেছিলাম। তার কারণ ছিল আমার মাসুম বাচ্চা। আমি বুঝে উঠতে পারিনি আমার সন্তানকে সবার সামনে আনার কারণে সত্যি সত্যি আমার বিবাহবিচ্ছেদ হবে। আমিও একজন মানুষ। বেলাশেষে প্রত্যেক মানুষকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করতে হয়। শেষ নিঃশ্বাসের সঙ্গে সঙ্গে শেষ ঠিকানাটাও ঠিক করতে হয়। এটা কেউ অস্বীকার করতে পারবেন না। আমার ধারণা ছিল, একটি মেয়ে সন্তান জন্ম দেওয়ার পর সংসার ভাঙার কথা ভাবতেই পারে না। কিন্তু সেই ভাঙনের সুরও আমার জীবনে বাজল। বাচ্চাটাকে কেন সবার সামনে নিয়ে আসলাম? কেন তাকে (শাকিব) ছোট করা হলো? বাচ্চার পরিচয় দেওয়ার জন্য তাকে নাকি ছোট করেছি। ধর্মের প্রতি সম্মান রেখে বলছি, আমার বাচ্চার জন্য আমার সংসারের জন্য আমি মুখ বুজে ছিলাম। এখন সময় এসেছে আরো একটি সত্যের মুখোমুখি হওয়ার। যা নিয়ে এখন চাপের মুখে পড়েছি। এই বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যমে কেউ সঠিক, কেউ মিথ্যা আবার কেউ কেউ যে যার মতো করে লিখছেন। সেই জায়গা থেকে আমি আজ পরিষ্কারভাবে বলছি, আমি একজন হিন্দু। আমার সমস্ত নথি-পত্রে আছে আমি হিন্দু।

প্রশ্ন : কিন্তু জয় কোন ধর্মে বড় হচ্ছে?

অপু বিশ্বাস: জয়ের বাবা যেহেতু শাকিব খান। সেই জায়গা থেকে জয় ইসলাম ধর্মেই আছে।

প্রশ্ন : সময় দেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

অপু বিশ্বাস: আপনাকেও ধন্যবাদ।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT