রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

রবিবার ৩১ মে ২০২০, ১৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

১১:৫০ পূর্বাহ্ণ

ঝুঁকি নিয়ে শুটিং নয় জোট বাঁধছেন শিল্পীরা

প্রকাশিত : ১২:৫৪ AM, ১৮ মে ২০২০ Monday ৬ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

করোনার প্রাদুর্ভাবের ফলে গত মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে দেশের সব ধরনের শুটিং। এর মধ্যে সম্প্রতি গোপনে শুটিং করতে গিয়ে তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েন একাধিক অভিনয়শিল্পী। সম্প্রতি শুটিং বন্ধ রাখার পুরানো সিদ্ধান্তে শিথিলতা আনে টিভি-সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলো। শর্ত সাপেক্ষে গতকাল রোববার থেকে যে কেউ চাইলে শুটিং করতে পারবেন। এ সিদ্ধান্তের ফলে মিডিয়া পাড়ায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিলেও ছোটপর্দার বেশিরভাগ অভিনয়শিল্পী এর পক্ষে নন। তাদের মতে শুটিংয়ে সংক্রমণ থেকে সবাই কতটা মুক্ত থাকতে পারবেন তা নিয়ে আশঙ্কা থেকেই যায়। এ বিষয়ে এফটিপি ও’র চেয়ারম্যান অভিনেতা মামুনুর রশীদ বলেন, ‘কেউ যদি মনে করেন এ শর্ত মেনে কাজ করতে পারবেন তাহলে করবেন, অন্যথায় করবেন না। যেহেতু এ সময় সরকার কিছু কিছু ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, অফিস, শপিংমল সীমিত আকারে খুলে দিয়েছে, তাই যাদের প্রয়োজন শুটিং করার তারা এ শর্ত মেনে করবেন। তবে আমি বলতে চাই, আমার কাছে জীবিকার থেকে জীবনের মূল্য বেশি। বেঁচে থাকলে অনেক কাজ করা যাবে। আমি নিজেও চাই সরকারের ছুটির সঙ্গে মিল রেখে ৩০ মে পর্যন্ত কোনো প্রকার শুটিং করব না। তবে কিছু কিছু মানুষের কথা চিন্তা করে আমাদের এ সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে।’

মোশাররফ করিম বলেন, ‘এই পরিস্থিতি কারোই কাম্য ছিল না। কিন্তু যেটা হয়ে গেছে সেটাকে মেনে নিয়েই চলতে হবে। শুধু আমাদের দেশেই নয়, পুরো পৃথিবীতে অস্থিরতা বিরাজ করছে। পরিবেশ সুস্থ হলে আর বেঁচে থাকলে অভিনয় করা যাবে। এটা নিয়ে এখনই কিছু ভাবছি না। লকডাউনের আগে বেশ কিছু খন্ড নাটকের শুটিং শেষ করা হয়েছে। আবার বেশ কিছু অসম্পূর্ণ কাজ আছে। ঈদের আগে এই পরিস্থিতিতে শুটিংয়ের ব্যাপারে আমি এখনই কোনো সিদ্ধান্তে আসতে চাই না।’

অভিনেত্রী মেহজাবীন চৌধুরী বলেন, ‘এই পরিস্থিতির মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আমি এখন শুটিং করব না। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে কাজ করা যাবে। আগে তো বাঁচতে হবে। সবকিছু ঠিক হোক তারপর দেখব। এ মুহূর্তে আসলে কাজ নিয়ে একদম ভাবছি না। কবে যে সবকিছু ঠিকঠাক হবে, সেটা নিয়েই চিন্তায় আছি।’

সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা অপূর্ব বলেন, ‘আমি আসলে আরও কিছু দিন দেখতে চাই। বর্তমানে বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি অনেক খারাপের দিকে যাচ্ছে। এখনই কোনো সিদ্ধান্ত নিতে চাই না। তবে এটাও কথা, এমন করে আর কত দিন ঘরে বসে থাকব আমরা। সময় যত যাচ্ছে আমাদের ঘরে থাকাটা অনেক কষ্টের হয়ে যাচ্ছে। যদি এমন হয় যে, সব ধরনের সুরক্ষা ব্যবস্থার মধ্য দিয়ে শুটিং করা সম্ভব। তবে ভেবে দেখব শুটিং করা যায় কি না। আমার কাছে পরিবার আগে।’ অভিনেত্রী জাকিয়া বারী মম বলেন, ‘আমি এখন শুটিংয়ে যাব না। তবে যারা এখনই শুটিং করতে খুব করে চাচ্ছেন তাদের জানাই ঈদ মোবারক।’ মৌসুমী হামিদ বলেন, ‘লকডাউন শিথিল হলেও এখনো আমরা করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত নই। দিনদিন করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। রোববার থেকে শর্তসাপেক্ষে শুটিং করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে আমি ঈদের আগে শুটিংয়ে ফিরছি না। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই শুটিংয়ে ফিরব। বেঁচে থাকলে অনেক শুটিং করতে পারব। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এই মুহূর্তে শুটিং করতে রাজি নই।

এ প্রসঙ্গে কয়েকজন পরিচালকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা জানান, ঈদের অধিকাংশ কাজ টেলিভিশনগুলো লক করে দিয়েছে। এ অল্প সময়ের মধ্যে এ বিধিনিষেধ মেনে নতুন নাটক তৈরি করাটা কষ্টকর। তাই আপাতত শুটিং করছি না।’

নির্মাতা ও অভিনেতা-অভিনেত্রীদের কথার রেশ ধরে বলা যায়, কাদের স্বার্থের দিকে তাকিয়ে শুরু করা হয়েছে এ শুটিং।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT