রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শনিবার ১৫ মে ২০২১, ১লা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

০৪:১১ অপরাহ্ণ

জামালগঞ্জের মানচিত্র থেকে নদী তীরবর্তী এলাকা বিলীন হচ্ছে সুরমায়!

প্রকাশিত : ০৭:২৮ PM, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ শনিবার ১৩৮ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

সুনামগঞ্জ জেলার অন্যতম স্থান ঐতিহাসিক সাচনা বাজার। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সু-নজর থাকায় বছর কয়েক আগে ব্লক ফেলে নদী ভাঙ্গন রোধের ব্যবস্থা নেয়ায় আজও টিকে আছে উক্ত বাজারটি।

কিন্তু ইদানিং আবার কোনো কোনো স্থানে বলক সরে যাওয়ায় নদী ভাঙ্গন শুরু হয়। সরেজমিনে দেখা যায় বাজার সংলগ্ন উত্তর কামলাবাজ জজ মিয়ার বাড়ী থেকে শুরু করে প্রায় কিলো দেড় কিলো পর্যন্ত নদী ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে যাচ্ছে শতাধিক বাড়ী ঘর।

অসহায়ত্বের মধ্যে দিনাতিপাত করছে পরিবার গুলো। এই বিষয়ে কথা হয়েছিল এলাকার বাসীন্দা হযরত আলীর সঙ্গে। তিনি জানান প্রতিনিয়ত নদীর পাড় ভেঙ্গে তলিয়ে যাচ্ছে। অসহায় অবস্থায় আছে অনেক পরিবার। অনেকেই অন্যের বাড়ীতে আশ্রয় নিয়েছে। কথা হয়েছিল স্বামীহিনা করুণা বিবির সঙ্গে তিনি জানান প্রায় ১৮ বছর আগে তার বিটে বাড়ী নদী ভাঙ্গনে তলিয়ে গেছে।

তিনি বলেন একটি মহল আমাকে খাস জমি দিলেও দ্বিতীয় মহলটি আমাকে তথায় বাস করতে দিচ্ছে না। তাই অন্য একজনের বাড়ীতে আশ্রয় নিয়ে আছিলাম। এখন স্বামী ছাড়া ছেলে মেয়ে নিয়ে কোনো মতে দিন কাটাচ্ছি। আমার মতো আরো কত পরিবার অসহায়ত্বের মধ্যে জীবন যাপন করছে।

কয়েকদিন আগে হঠাৎ নদীর পানি বেড়ে যাওয়ায় ববি মাইক মালিকের শশুর বাড়ী ( কলাউলার বাড়ী), ও স্বামীহিনা সমলা বিবির বাড়িদুটি নদীতে বিলীন প্রায়। অারো অনেকেই বাড়ির জরুরী জিনিষপত্র অন্যত্র সরিয়ে নিয়ছেন।

তাই এলাকার মানুষের প্রাণের দাবী নদী ভাঙ্গন রোধ করতে অতি তাড়াতাড়ি প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়া হোক। এ বিষয়ে জামালগঞ্জ ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান রজব আলীকে ফোন করলে তিনি ফোন রিসিভড না করায় কোনো কিছু জানা যায়নি। তবে একটি বিশ্বস্থ সূত্র জানায়, বলকের কাজ অচিরেই শুরু হতে পারে।

নদী ভাঙ্গন থেকে বাঁচতে জামালগঞ্জের উত্তর কামলাবাজে প্রতিষ্ঠিত নদী তীরবর্তীতে অবস্থিত জামালুল কোরআন হাফিজিয়া মাদরাসার শিক্ষক ও ছাত্রগণ এক বিশেষ মোনাজাত করেন।

অব্যাহত ভাঙ্গন থেকে রক্ষা পেতে দুই রাকাত সালাতুল ইসতেসকা শেষে হাঃ মাওলানা মো.কামাল উদ্দিন বিশেষ দোয়া-মুনাজাত পরিচালনা করেন।

আয়োজকরা জানান, কয়েক বছর ধরে জামালগঞ্জ উত্তর সদরের উত্তর কামলাবাজের নদীর ভাঙ্গনের খেলা চলছে। এতে কী পরিমাণ সম্পদ ও কতো মানুষ বাড়ি হারা হয়েছেন, তার সঠিক কোনো জরিপ নেই।

গত কয়েক বছর আগে বাজার সংলগ্ন জজমিয়ার বাড়ি পর্যন্ত ব্লক হওয়ায় টিকে আছে অর্ধশতাধিক বাড়ি/ঘর।

তাই জামালগঞ্জ উত্তর সদরের উত্তর কামলাবাজবাসীর প্রাণের দাবি পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ অত্র ইউপি চেয়ারম্যান ও সুনামগঞ্জ-১ আসনের এমপি ইঞ্জিনিয়ার মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন রতন- এর দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন উক্ত এলাকাবাসী। সাথে অতিদ্রুত নদী ভাঙ্গন থেকে উত্তর কামলাবাজকে না বাঁচালে জামালগঞ্জের মানচিত্র থেকে বিলীন হবে উত্তর কামলাবাজ।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT