রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

সোমবার ১৭ মে ২০২১, ৩রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

০৭:৩১ অপরাহ্ণ

শিরোনাম
◈ লোহাগড়ায় ১৭ই মে স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত ◈ কালিহাতী থানায় নতুন ওসির যোগদান ◈ ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুরে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ২৪০ বস্তা চাল জব্দ, আটক-১ ◈ নওগাঁর আত্রাইয়ে শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদককে প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা ◈ ঈদ প্রীতি ফুটবল ম্যাচ,বড় দল বনাম ছোট দল, বিশেষ আকর্ষণ দেশের দ্রুত তম মানব ইসমাইল ◈ বিরলে শেখ হাসিনা’র স্বদেশ-প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে যুবলীগের দোয়া ও খাদ্য বিতরণ ◈ বুড়িচং উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের মতবিনিময় সভা অনষ্ঠিত ◈ মতিন খসরু’র স্মরণ সভা ও পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠিত ◈ স্ত্রী কানিজ ফাতিমা হত্যায় আটক সেনা সদস্য স্বামী রাকিবুলের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন ◈ বাঁশখালীতে বেড়াতে আসা তরুণীকে ধর্ষণ করে আবারো আলোচনায় সেই নূরু

জাবির নির্জন ক্যাম্পাসে অতিথি পাখির মেলা

প্রকাশিত : ০৪:৩৫ AM, ২২ নভেম্বর ২০১৯ শুক্রবার ১১৬ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

অস্থিতিশীল পরিস্থিতিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) আবাসিক হলগুলো অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রয়েছে। শিক্ষার্থীদের অনুপস্থিতিতে গোটা ক্যাম্পাসই এখন নির্জন। সন্ধ্যার অন্ধকারে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাস্তায় হাঁটতে গেলে গা ছমছম করে। তবে অতিথি পাখির আগমনে এই নির্জন ক্যাম্পাসের জলাশয়গুলো এরই মধ্যে প্রাণচঞ্চল হয়ে উঠেছে। পাখির কলতানে দিনভর মুখর থাকে এসব জলাশয়। গত কয়েক বছরের তুলনায় এবার সবচেয়ে বেশি পাখি এসেছে ক্যাম্পাসে।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ে ছোট-বড় ১২টি জলাশয় রয়েছে। এর মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনের জলাশয়, জাহানারা ইমাম ও প্রীতিলতা হল সংলগ্ন জলাশয়, ওয়াইল্ড লাইফ রেসকিউ সেন্টারের ভেতরের জলাশয়, সুইমিংপুল এলাকার জলাশয়ে অতিথি পাখির আধিক্য দেখা যায়। এই জলাশয়গুলো অতিথি পাখির জন্য উন্মুক্ত করে রাখা হয়।

অতিথি পাখির মধ্যে রয়েছে- সরালি, পিচার্ড, গার্গেনি, মুরগ্যাধি, মানিকজোড়, কলাই, নাকতা, জলপিপি, ফ্লাইপেচার, পাতারি, চিতা টুপি ও লাল গুড়গুটি। অতিথি পাখির মধ্যে অধিকাংশই ছোট হাঁসজাতীয়। প্রাণিবিদ্যা বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ১৯৮৬ সালে সর্বপ্রথম জাবিতে অতিথি পাখি আসা শুরু করে। এই ক্যাম্পাস এলাকায় ১২৬টি দেশীয় ও ৬৯টি বিদেশি প্রজাতি মিলিয়ে মোট ১৯৫ প্রজাতির অতিথি পাখি রয়েছে। তবে এদের মধ্যে দেশীয় ৭৮ প্রজাতির পাখি ক্যাম্পাসে নিয়মিত বাসা বাঁধে।

সেপ্টেম্বরের শুরু থেকেই কিছু অতিথি পাখি জলাশয়ের আশপাশের গাছগাছালির ডালপালায় ও কিছু পাখি জলাশয়ের পানিতে আশ্রয় নেয়। ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকে মধ্য জানুয়ারি পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি পাখি আসে। সাইবেরিয়া, চীনের জিনজিয়াং, মঙ্গোলিয়া ও নেপালে প্রচুর তুষারপাত থাকায় নিরাপদ আশ্রয়স্থল হিসেবে কম শীতল এলাকা বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় পাড়ি জমায়।

এদিকে, প্রতিবছর জনসচেতনতা বাড়ানোর লক্ষ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের উদ্যোগে পাখি মেলার আয়োজন করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষক ও পাখি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক মো. কামরুল ইসলাম বলেন, সেপ্টেম্বরের শুরুতে অতিথি পাখি আসতে শুরু করেছে। প্রতিবছরের মতো এবারও অতিথি পাখির আবাসস্থল নিরাপদ রাখতে জলাশয়গুলো পরিস্কার ও তীরগুলো সংস্কার করা হয়েছে। পাখি সংরক্ষণে সচেতনতা বাড়াতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। এই ক্যাম্পাসটি পাখিদের জন্য একটি নিরাপদ আবাসস্থল হিসেবে পরিচিত।’ তিনি আরও বলেন, ‘জানুয়ারি মাসের শুরুর দিকে পাখিমেলার আয়োজন করা হবে।’

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT