রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শনিবার ২২ জানুয়ারি ২০২২, ৯ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

০২:২৭ অপরাহ্ণ

শিরোনাম
◈ আ’লীগ নেতা সৈয়দ মাসুদুল হক টুকুর পিতার ২১ তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ ◈ ঘাটাইল আশ্রয়ন প্রকল্প পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিচালক ◈ শীতার্তদের মুখে হাসি ফোটালেন সিদ্ধিরগঞ্জ মানব কল্যাণ সংস্থা ◈ হরিরামপুরে স্বামীর দ্বিতীয় বিয়ে বন্ধে স্ত্রীর অনশন ◈ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গরীব-দুঃখীদের পাশে রয়েছেন সাবেক সিনিয়র সচিব সাজ্জাদুল হাসান… ◈ কালিগঞ্জের কৃষ্ণনগর করোনা এক্সপার্ট টিমের কম্বল বিতরণ ◈ পেইড পিয়ার ভলান্টিয়ারদের চাকরী স্থায়ীকরণের দাবিতে মানববন্ধন ◈ ফুলবাড়ীতে শীতার্তাদের মাঝে ডিয়ার এক্স টিমের শীতবস্ত্র বিতরণ ◈ রানীরবন্দর রুপালী ব্যাংক লিঃ ব্যবস্থাপকের বিদায় ও বরণ ◈ শার্শায় বাইক ছিনতাই করে চালককে হত্যায় জড়িত ৩ আসামী আটক

জাতীয় দলে ফিক্সারদের দ্বিতীয় সুযোগ দিতে রাজি নই: হাফিজ

প্রকাশিত : ০৩:১৫ PM, ৪ জানুয়ারী ২০২২ মঙ্গলবার ২৭ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

সোমবার দীর্ঘ ১৮ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ইতি টেনেছেন পাকিস্তানের অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার মোহাম্মদ হাফিজ। পাকিস্তানের জার্সিতে আর খেলতে দেখা যাবে না তাকে। তবে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টগুলোতে খেলবেন ৪১ বছর বয়সী এ ব্যাটিং অলরাউন্ডার।

অবসরের ঘোষণা দেওয়ার পর সংবাদ সম্মেলনে উঠে এসেছে হাফিজের ক্যারিয়ারের নানান দিক। প্রসঙ্গক্রমে তার কাছে জানতে চাওয়া হয় ক্যারিয়ারের সবচেয়ে কষ্টের সময় ছিল কোনটা? এসময় তিনি জানান, চিহ্নিত ফিক্সারের সঙ্গে জাতীয় দলে খেলাটাই তার জন্য হতাশাজনক ছিল।

২০১০ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে লর্ডস টেস্টে স্পট ফিক্সিং করে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন মোহাম্মদ আমির। সাজা ভোগ করে ২০১৫ সালে পাকিস্তানের জাতীয় দলে ফেরেন তিনি। কিন্তু আমিরকে দলে ফেরানো হয়েছে দেখে নিজ থেকে সরে দাঁড়ান হাফিজ ও তখনকার ওয়ানডে অধিনায়ক আজহার আলি।

পাকিস্তান তো বটেই, বিশ্ব ক্রিকেটেই আলোড়ন তুলেছিল হাফিজ-আজহারের সেই সিদ্ধান্ত। তবে শেষ পর্যন্ত বোর্ডের হস্তক্ষেপে আমিরের সঙ্গে জাতীয় দলে খেলতে হয়েছে হাফিজকে। কিন্তু বিপিএলে চট্টগ্রাম ভাইকিংসসহ কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি দলে আমিরের সঙ্গে কোনোদিন খেলেননি হাফিজ।

এ বিষয়ে তিনি বলেছেন, ‘আমার কাছে ক্যারিয়ারের সবচেয়ে হতাশার ও কষ্টের ব্যাপার ছিল, যখন আমি ও আজহার আলি এই ইস্যুতে নীতিগত অবস্থান নিয়েছিলাম কিন্তু সেই সময়ের বোর্ড চেয়ারম্যান আমাদেরকে বলেছিলেন, আমরা খেলতে না চাইলে সমস্যা নেই, কিন্তু সংশ্লিষ্ট ঐ খেলোয়াড় (আমির) খেলবে।’

সেই ঘটনার পেরিয়ে গেছে প্রায় সাত বছর। এমনকি আমিরের ফিক্সিংয়েরও কেটে গেছে প্রায় এক যুগ। তবু দেশের সঙ্গে অপরাধ করায় আমির তথা কোনো ফিক্সারকেই জাতীয় দলে দ্বিতীয় সুযোগ দেওয়ার পক্ষে নন হাফিজ। এখনও তিনি ফিক্সারদের বিরুদ্ধে একই অবস্থানে আছেন।

হাফিজ বলেছেন, ‘আমি ফিক্সারদের বিরুদ্ধে ছিলাম, এখনও আছি। কখনও চাইনি, ফিক্সারদের দ্বিতীয় কোনো সুযোগ দেওয়া হোক। সেই সময়ের পিসিবি চেয়ারম্যান আমাকে বলেছিলেন নিজের চরকায় তেল দিতে। যা-ই হোক না কেন, ঐ ফিক্সারদের দ্বিতীয় সুযোগ দেওয়া হবে। তার কথা শোনার পর আমি ভেঙে পড়েছিলাম।’

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT