রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

বুধবার ১৭ আগস্ট ২০২২, ২রা ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

০৭:০৬ অপরাহ্ণ

চুল কেটে নির্যাতনে মামলা করায় বাদীকে হুমকি, হয়নি গ্রেফতার

প্রকাশিত : 08:53 PM, 8 October 2021 Friday 127 বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

মোঃ তানবীর হাসান, ঈশ্বরগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রতিবেশীর বাড়িতে হারিয়ে যাওয়া মুরগি খুঁজতে গিয়ে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জের আঠারবাড়ী ইউনিয়নের গলকুন্ডা গ্রামের এক গৃহবধূর চুল কেটে নির্যাতনের অভিযোগে থানায় মামলা করায় বাদীর পরিবারকে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে আসামির লোকজন।
এদিকে, চুল কেটে নির্যাতন মামলার ৩দিন পার হলেও শহীদ মিয়া (৪৫), তার স্ত্রী নিপা আক্তার (৪০) এবং মেয়ে ফাহিমা আক্তার (২০) গ্রেফতার হয়নি। বরং থানায় মামলা করায় প্রতিনিয়ত বাদীর পরিবারকে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে আসামিদের লোকজন। এতে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে বলে দাবি করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার।
শুক্রবার (৮ অক্টোবর) সকালে ভুক্তভোগী পরিবার সাংবাদিকদের কাছে এসব অভিযোগ করেন।
ভুক্তভোগী পরিবার জানায়, চলতি মাসের ২ অক্টোবর শনিবার রাতে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও নিজ বাড়িতে মুরগি খুঁজে না পাওয়ায় প্রতিবেশী শহীদ মিয়ার বাড়িতে মুরগি খুঁজতে যান হুমায়ুন কবীরের স্ত্রী মঞ্জুরা আক্তার। প্রতিবেশী শহীদ মিয়ার বাড়িতে যেয়ে জিজ্ঞেস করেন তিনি, মুরগি এসেছে কি-না। এই কথা বলতেই শহীদ মিয়া রেগে যান। সাথে সাথে শহীদ মিয়ার স্ত্রী নিপা আক্তার এবং মেয়ে ফাহিমা আক্তারও রেগে যান। কিল-ঘুষি মারতে থাকেন ওই গৃহবধূকে। এক পর্যায়ে তারা কাঁচি দিয়ে মাথার লম্বা চুল কেটে দেন ওই গৃহবধূর। কিছুক্ষণ পর গৃহবধূ বাড়িতে ফিরে এসে পরিবারের সবাইকে ঘটনাটি জানায়।
সব ঘটনা শোনার পর গৃহবধূর স্বামী হুমায়ুন কবীর আঠারবাড়ীর রায়ের বাজার তদন্ত কেন্দ্রে বিষয়টি জানান। পরে মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) ঈশ্বরগঞ্জ থানায় মামলা রুজু করা হয়। মামলার তিন দিন পার হলেও গ্রেফতার হয়নি মামলার প্রধান আসামি শহীদ মিয়াসহ অন্যান্য আসামিরা। বরং আসামিদের লোকজন বাদীর পরিবারকে হুমকি-ধমকি দিচ্ছে।
মামলার বাদী জানান, চুল কেটে নির্যাতনের পর থেকে আমার স্ত্রী মানসিকভাবে খুবই ভেঙে পড়েছেন। এর মধ্যে আসামিপক্ষের লোকজনের হুমকি-ধমকিতে ভয়ে আছি। ওরা প্রভাবশালী, আমার পরিবারের যদি কোনো ক্ষতি করে ফেলে। তা নিয়ে উৎকণ্ঠায় দিন পার করছি। আসামিরা গ্রেফতার হলে, চিন্তামুক্ত হতাম।
চুল কেটে নির্যাতন মামলার অভিযুক্ত শহীদ মিয়ার আরেক মেয়ে আঁখিমনি বলেন, ওই গৃহবধূর চুল কেটে দেওয়ার বিষয়টি শুনেছি, কিন্তু দেখেনি।
রায়ের বাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এস,আই মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT