রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

মঙ্গলবার ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

০৭:৪৪ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ ভিবিডি গোপালগঞ্জ জেলা কর্তৃক আয়োজিত “আনন্দ আহার” ◈ সম্প্রীতির হবিগঞ্জ সংগঠনের জেলা শাখার সিনিয়র সদস্য নির্বাচিত হলেন শুভ আহমেদ ◈ কবিতা : শীতের পিঠা – মোঃ শহিদুল ইসলাম ◈ ধামইরহাটে জঙ্গিবাদ মৌলবাদ ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে যুবলীগের বিক্ষোভ সমাবেশ ◈ ধামইরহাটে দার্জিলিং জাতের কমলার চারা রোপন ◈ ধামইরহাটে মাস্ক না পরায় বিভিন্ন শ্রেনি পেশার মানুষের জরিমানা, সচেতন করতে রাস্তায় নামলেন এসিল্যান্ড ◈ সকল ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধীদের প্রবেশগম্যতা নিশ্চিত করার আহ্বান ◈ ধামইরহাটে অজ্ঞাত রোগে মাছে মড়ক, ৩০ লাখ টাকার ক্ষতিতে মৎস্যচাষী’র হাহাকার ◈ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমলেই জনকল্যানমূলক কাজ সবচেয়ে বেশি হয়েছে- এমপি শাওন ◈ উদয়কাঠী ইউনিয়ন পরিষদের স্মার্ট কার্ড বিতরনের উদ্বোধন করেন চেয়ারম্যান ননি

ঘুরে আসুন ঘিওরের নৌকার হাট

প্রকাশিত : ০৪:৪১ PM, ৭ অগাস্ট ২০১৯ Wednesday ৩০০ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

বৃষ্টির দিনে গ্রামবাংলা বিশেষ করে হাওর অঞ্চলে যাতায়াত চলে নৌকাতেই। ঝড় হোক বা বৃষ্টি ছাতা মাথায় উঠে পড়তে হয় নৌকায়। হাওর পাড়ি দিতে ভরসা কেবলমাত্র নৌকাই। তাছাড়া যেসব এলাকার রাস্তাঘাট পানিতে তলিয়ে যায়, তাদেরও ভরসা শুধুই নৌকা। বর্ষাকালে মানিকগঞ্জের নিম্নাঞ্চল বিশেষ করে দৌলতপুর, ঘিওর, হরিরামপুর ও শিবালয় উপজেলার নদী তীরবর্তী গ্রামের চারপাশ পানিতে থৈ থৈ করে। তাইতো বর্ষার সময় প্রতিবছর মানিকগঞ্জের ঘিওরে নৌকার হাট বসে। পছন্দসই নৌকা কিনতে হাটে ভিড় জমায় লোকজন। তবে এ হাট দেখতে যাওয়া পর্যটকদের সংখ্যাও কম নয়।

একদিনে ঢাকার আশেপাশে যারা ঘুরতে চান, তাদের জন্য ঘিওর হতে পারে আদর্শ স্থান। এখানে এসে অন্তত স্বস্তির নিঃশ্বাস নিতে পারবেন। শত শত নৌকা দেখার পাশাপাশি সোঁদা মাটির স্বাদ আর একটু ঐতিহ্যের ছোঁয়া পাবেন। যা একঘেয়েমি ব্যস্ত জীবনের ক্লান্তি দূর করে দেবে অনেকটাই। প্রতি বুধবার ভোর থেকেই জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে বিভিন্ন যানবাহন ও ইঞ্জিনচালিত ট্রলারে করে ব্যবসায়ীরা নৌকা নিয়ে হাটে আসেন। সে দৃশ্য নজর কাড়ে যে কারো।

ঘিওরের এই হাটের বয়স দুইশ’ বছরেরও বেশি। এক সময় এই হাটের ছিল ভরা যৌবন। দূর-দূরান্ত থেকে মানুষের পদচারণা আর কোলাহলের আওয়াজ মাইল কে মাইল দূর থেকে শোনা যেত। লোকজন তাদের সারা সপ্তাহের নিত্য প্রয়োজনীয় বাজার সদাই এই হাট থেকেই করে নিত। কলকাতার মহাজন দাদা বাবুরা এই হাট থেকে এই এলাকার বিখ্যাত হরেক রকমের ডাল পাইকারি কিনে নিয়ে গিয়ে সেখানকার বাজারে বিক্রি করতো।

গাবতলী থেকে যেকোনো বাসে মানিকগঞ্জ জেলার বরংগাইল বাসস্ট্যান্ড নেমে সিএনজি যোগে ঘিওর হাটে যেতে পারেন। সেখানকার সবচেয়ে আকর্ষণীয় এবং সুস্বাদু মজার খাবার নিজামের মিষ্টি। যার স্বাদ এক কথায় অতুলনীয়। যার দাম প্রকারভেদে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা কেজি এবং প্রতি পিস ৩০ টাকা করে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT