রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

বুধবার ১৭ আগস্ট ২০২২, ২রা ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

০৭:৩৮ অপরাহ্ণ

খড়ায় পুড়ছে বীজতলা, বিপাকে কৃষকেরা

প্রকাশিত : 10:50 PM, 18 July 2022 Monday 57 বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

খড়ায় পুড়ছে বীজতলা, বিপাকে কৃষকেরা

ফারুক আহমেদ, মনোহরদী (নরসিংদী) প্রতিনিধি আষাঢ়-শ্রাবন মাসে দিনভর আকাশজুড়ে মেঘ আর ঝুম বৃষ্টি হওয়াটা স্বাভাবিক। কিন্তু প্রকৃতি এবার রাগ করে বসেছে। আষাঢ় পেরিয়ে শ্রাবণের শুরু অথচ এখনো পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাতের দেখা নেই নরসিংদীর মনোহরদীতে। অনাবৃষ্টির কারণে খরায় পুড়ছে রোপা আমনের বীজতলা। পানির অভাবে ফেটে চৌচির হয়ে আছে ধানের জমি। আগামী সপ্তাহ থেকে জমিতে রোপা আমন চাষ করার কথা থাকলেও বৃষ্টি না হওয়ায় জমি চাষ করতে পারছেন না কৃষকরা। এ কারনে কৃষকের কপালজুড়ে চিন্তার ভাঁজ পড়ছে। সময়মতো ধান রোপণ করতে না পারলে চলতি মৌসুমে ভালো ফলন না পাওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। কোনো কোনো কৃষক বাধ্য হয়ে সেচ দিয়ে আমন চারা তৈরির চেষ্টা করলেও পানির অভাবে চারার জমি ফেটে চৌচির হয়ে যাচ্ছে। রোদে মানুষসহ হাঁসফাঁস করছে পশু-পাখিও। প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘরের বাইরে বের হচ্ছেন না। একটু শীতল ছায়া বা এক পশলা বৃষ্টির অপেক্ষায় রয়েছে উপজেলাবাসী। ভরা বর্ষা মৌসুমেও বৃষ্টির দেখা নেই। কাঙ্ক্ষিত বৃষ্টি না হলে একদিকে যেমন কৃষকের সেচ খরচ বৃদ্ধি পেয়ে ধানের উৎপাদন খরচ বেড়ে যাবে, অন্যদিকে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত না হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিতে পারে। উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বীজতলা ঘুরে দেখা যায়, বৃষ্টির কারনে রোপা আমনের জন্য তৈরি বীজতলায় ধানের চারাগুলো সঠিকভাবে বেড়ে উঠতে পারছে না। পানির অভাবে বীজতলা ও ফসলি জমি ফেটে চৌচির হয়ে আছে। শুকুন্দী সুতালরীকান্দা গ্রামের কৃষক মানিক মিয়া, রফিক ও আহম্মদ আলী জানান, আষাঢ় মাস শেষ হয়ে শ্রাবণ মাস চলছে অথচ এখনো পর্যাপ্ত বৃষ্টি হয়নি। পানির অভাবে ধানের চারাগুলোও বড় হতে পারছে না। বীজতলায় পানি খুব দরকার। এদিকে মাঠে ধান রোপণের জন্য হাতে সপ্তাহ দুয়েক সময় আছে। এর মধ্যে যদি পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত না হয় তাহলে এ বছর রোপা আমন চাষ করে ভালো ফলন পাওয়া সম্ভব হবে না। কৃষকরা আরো জানান, আষাঢ়-শ্রাবণ মাসে যেখানে বৃষ্টির জন্য ক্ষেতে রোপণ করা ধানের চারা বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে যেত। অথচ এবছর অনাবৃষ্টির কারনে জমিতে ধান রোপণ করা নিয়েই চিন্তিত আছি। বৃষ্টি নেই, খাল বিল শুকিয়ে গেছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আয়েশা আক্তার বলেন, ভরা বর্ষায় বৃষ্টিপাত না হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন চাষিরা। তবে কয়েকদিনের মধ্যে বৃষ্টি আরম্ভ হয়ে গেলে চাষের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন নিয়ে শঙ্কা থাকবে না।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- [email protected] আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT