রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শনিবার ৩০ মে ২০২০, ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

০৬:৩৩ অপরাহ্ণ

শিরোনাম
◈ জামালপুরে তিনদিনেও চালু হয়নি পিসিআর ল্যাব মেডিক্যাল ছাত্রীসহ আরো আক্রান্ত ৫ ◈ মুরাদনগরে সাবেক চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা বলাই মাস্টারের পরলোকগমন ◈ সিরাজগঞ্জে জিয়াউর রহমানের ৩৯ তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত ◈ নোয়াখালীর সেনবাগে একই পরিবারের ৫ জন করোনায় আক্রান্ত ◈ সিরাজগঞ্জে করোনা আতংকের মাঝে আবারও বাল্যবিবাহের চেষ্টা, বন্ধ করলেন এসিল্যান্ড ◈ কাল খুলছে অফিস, চলবে গণপরিবহনও ◈ সরকারের সব খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত প্রজ্ঞাবিহীন: ফখরুল ◈ রোববার থেকে চলবে ৮ জোড়া ট্রেন, বাড়ছে না ভাড়া: রেলমন্ত্রী ◈ ৩০ ভাগ করোনা রোগীরও চিকিৎসা দিতে পারছে না সরকার: রিজভী ◈ বাড়ছে প্রাকৃতিক দুর্যোগ

কুকুরের রক্তে নতুন জীবন পেল বিড়াল

প্রকাশিত : ০৫:১৮ PM, ২৫ নভেম্বর ২০১৯ Monday ১১৭ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

কুকুর-বিড়ালের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বিরলই বটে। আর দুজনের মধ্যে চরিত্রগতও বেশ অমিল রয়েছে। তবে এবার এক মুমূর্ষু বিড়ালের পাশে বন্ধুর মতো দাঁড়িয়েছে একটি কুকুর। রক্ত দিয়ে বিড়ালটির জীবন বাঁচিয়েছে। সম্প্রতি নিউজিল্যান্ডে এ ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে, রোরি নামের জিঞ্জার প্রজাতির বিড়ালটি বিষাক্ত ইঁদুর খাওয়ার কারণে রক্তক্ষরণ শুরু হয়। যখন ভেটেরিনারিতে আনা হয়, তখন রক্ত পরীক্ষা করার ল্যাবরেটরি বন্ধ হয়ে যায়। তাই অন্য কোনো বিড়ালের রক্ত পরীক্ষা করা প্রায় অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায়।

তাউরাঙ্গা ভ্যাটেরিনারিয়ান কেট হেলার বলেন, ভিন্ন গ্রুপের রক্ত দিলে বিড়ালটির মারা যাওয়ার আশঙ্কা ছিল। তাই একমাত্র উপায় ছিল, একই গ্রুপের কোনো কুকুরের রক্ত সরাসরি রোরির দেহে সঞ্চালন করা। আর তার মাধ্যমে বিড়ালটির ইমউনো সিস্টেমকে বাঁচিয়ে রাখা, যতক্ষণ না রোরির গ্রুপের কোনো বিড়ালের রক্ত পাওয়া যায়। কুকুরটি সেই মুহূর্তে মুমূর্ষু বিড়ালটিকে রক্ত না দিলে এটি মারা যেতো।

তিনি আরো বলেন, দুটি ভিন্ন প্রজাতির পশুর মধ্যে রক্ত সঞ্চালন খুব বিরল এবং কেউই এটা আগে করেনি বা করার পরামর্শও দেয়নি। কিন্তু বিকল্প কোনো পথ না থাকায় জরুরি অবস্থায় এটা করতে হয়েছে।

এদিকে রোরির মালিক কিম এডওয়ার্ডস ল্যাবরাডোর প্রজাতির কুকুর আছে এমন একজনকে চিনতেন। আর তাকে ফোন করা মাত্রই তিনি কুকুর নিয়ে ভেটেরিনারিতে হাজির হয়েছিলেন।

কেট হেলার আরো জানান, কুকুরের রক্ত দেয়ার আগে রোরি বেশ কাতরাচ্ছিল। কিন্তু রক্ত সঞ্চালনের এক ঘণ্টা পরই সে ওঠে বসে। এক বাটি বিস্কুট গোগ্রাসেও খেয়ে ফেলে।

এডওয়ার্ড জানান, ভেটেরিনারি থেকে ফিরে রোরির চমৎকার পরিবর্তন হয়েছে। সে আগের মতোই চলাফেরা করছে, স্বাভাবিক গতিতেই খেলাধুলা করছে। সূত্র- ডয়চেভেলে, মিরর

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT