রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শনিবার ৩০ মে ২০২০, ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

০২:৩৫ অপরাহ্ণ

কার্যকর হোক নতুন সড়ক আইন

প্রকাশিত : ০৭:০৩ AM, ৩ নভেম্বর ২০১৯ Sunday ১০৮ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

পার হয়ে গেছে ৭৯ বছর। সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়েছে পৃথিবী। কিন্তু আমরা পারিনি। আমাদের দ্বিমুখী চরিত্রের কারণে ছাড়তে পারিনি বর্তমান সময়ের জন্য নেতিবাচক নিয়ম ও সংস্কার। বুঝতে চেষ্টাও করিনি, পুরোনো সেই আইন এবং সংস্কার এ যুগে অচল। তাই সময় এবং পরিবেশের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে না পেরে তৈরি করেছে সংঘাত আর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সমাজ। পরিবর্তনের চেষ্টা যে হয়নি, তাও নয়। চেষ্টা হলেও তৈরি করতে পারেনি কোনো মাইলফলক।

তাই সড়ককে নিরাপদ করা নিয়ে এত বিতর্ক। সম্ভবত এত দিনের সেই বিতর্কের লাগাম কিছুটা হলেও টেনে ধরার কাজ শুরু হয়েছে। আইন সংস্কার করার মধ্য দিয়ে আমাদের সড়ক কিছুটা হলেও নিরাপদ হবে বলে মনে করছেন অনেকেই। ৭৯ বছরের পুরোনো আইনের ভিত্তিতে তৈরি মোটরযান অধ্যাদেশ বাতিল করে গতকাল শুক্রবার থেকে সারা দেশে কার্যকর হতে চলেছে আলোচিত সড়ক পরিবহন আইন-২০১৮।

নতুন আইনে বেপরোয়া বা গাড়ি চালানোর ক্ষেত্রে অবহেলায় কেউ গুরুতর আহত বা কারো প্রাণহানি হলে অপরাধীর সর্বোচ্চ পাঁচ বছর কারাদ- বা অনধিক পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দ-ের বিধান রাখা হয়েছে। তদন্তে যদি দেখা যায় উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে চালক বেপরোয়া গাড়ি চালিয়ে হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে থাকে, তাহলে দণ্ডবিধির ৩০২ ধারা অনুযায়ী শাস্তি দেওয়া হবে। অর্থাৎ সর্বোচ্চ সাজা হবে ফাঁসি। এ ধরনের অপরাধকে অজামিনযোগ্য বলে বিবেচনা করা হবে।

এ ছাড়া ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালালে ছয় মাসের কারাদণ্ড বা অনধিক ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। একই অপরাধে আগের আইনে ছিল তিন বছরের কারাদ- ও জামিনযোগ্য। এ ছাড়া নতুন আইনে বৈধ চালক ছাড়া নিয়োগ না দেওয়ার বিধান আবার যুক্ত করে বলা হয়েছে, কারো ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকলে তাকে চালক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া যাবে না।

বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬ অনুসারে, লিখিতভাবে চুক্তি সম্পাদন নিয়োগপত্র ছাড়া কোনো ব্যক্তিকে গণপরিবহনের চালক নিয়োগ করতে পারবে না। এ ছাড়া কন্ডাক্টর নিয়োগের ক্ষেত্রে কন্ডাক্টর লাইসেন্স ছাড়া নিয়োগ করা যাবে না।

গত বছরের ২৯ জুলাই রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থীর প্রাণহানির ঘটনায় গড়ে ওঠা নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর সড়ক পরিবহন আইনটি জাতীয় সংসদে পাস হয়। কিন্তু এর বিরুদ্ধে পরিবহন শ্রমিকরা আন্দোলনে নামেন। সরকার সে সময় কিছুটা ব্যাকফুটে গেলেও শেষ পর্যন্ত কোনো সংশোধন ছাড়াই আইনটি কার্যকর হতে চলেছে। সম্ভবত এবারও বাধা আসতে পারে। তবে সিদ্ধান্ত যখন রাজনৈতিক, তখন একে আর থামিয়ে রাখার ক্ষমতা কারো নেই বলেই আমরা বিশ্বাস করি।

আমরা মনে করি, যেকোনো নৈতিক কাজের সঙ্গে এ দেশের মানুষ সব সময় একাত্মতা ঘোষণা করেছে এবং ভবিষ্যতেও করবে। সরকার সফল হোক। জীর্ণ-পুরোনো আবর্জনার সঙ্গে গারভেজে নিক্ষিপ্ত হোক— এটাই প্রত্যাশা।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT