রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

মঙ্গলবার ২৪ মার্চ ২০২০, ১০ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

১১:৩৮ পূর্বাহ্ণ

কাদের করোনায় ক্ষতি হবার সম্ভাবনা বেশি, কাদের কম?

সোহেল রানা

প্রকাশিত : ১০:২৫ AM, ২১ মার্চ ২০২০ Saturday ১৬ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

কাদের করোআমি কি করোনায় আক্রান্ত হতে পারি? কাদের করোনায় ক্ষতি হবার সম্ভাবনা বেশি, কাদের কম?

করোনার বিস্তার এখন পর্যন্ত আমরা বন্ধ করতে পারিনি। এখনকার হারে করোনার বিস্তার চলতে থাকলে এবং লংগিনি বা লিপসিচের গাণিতিক মডেল বাস্তব হলে পৃথিবীর যে এক তৃতীয়াংশ লোক করোনায় আক্রান্ত হবেন তার মাঝে আপনি থাকতেই পারেন। ফলে আক্রান্ত হওয়া অস্বাভাবিক কিছু না।

মূলত দুইভাবে করোনা আপনি পর্যন্ত পৌঁছাতে পারে।

১) করোনায় আক্রান্ত কারো মাধ্যমে

২) ভাইরাস আছে এমন কোন সারফেস বা তল স্পর্শ করার মাধ্যমে

১) করোনা আক্রান্ত কোন ব্যক্তির শরীরের ৬ ফুটের দূরত্বে আসলে বা তার কাশি বা সর্দির সংস্পর্শে আসলে আপনি করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে যেসব লোক করোনার লক্ষ্মণ প্রকাশ করছে না ( অর্থাৎ যাদের শরীরে করোনা আছে কিন্তু লক্ষ্মণ নেই) তাদের সংস্পর্শে আসলে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা খুব কম।

২) করোনা ভাইরাস আছে এমন কোন তল বা সারফেস স্পর্শ করার পর নাক, চোখ বা মুখ স্পর্শ করলেও আপনার কোভিড-১৯ হতে পারে। তবে, করোনা ভাইরাস মূলত ছড়ায় ১ নম্বর উপায়ে।

ঠিক একারণেই আপনাকে করোনা রোগীদের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলতে বলা হচ্ছে ও সাবান দিয়ে বার বার হাত ধুতে বলা হচ্ছে। সাবানে ক্ষারজাতীয় উপাদান থাকে যা করোনার দেহের চারদিকে থাকা লিপিড এনভেলাপ গলিয়ে ভাইরাসকে মেরে ফেলে। আপনার মুখ, চোখ বা নাক মূলত আপনার হাতেরই স্পর্শ পায়। ফলে হাত ভাইরাস মুক্ত থাকলে আপনার মুখ, চোখ ও নাক আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়। হাত ভাইরাসমুক্ত রাখতেই আপনি সাবান দিয়ে হাত ধুবেন। কারণ এই হাতে আপনি অনেক সারফেস স্পর্শ করেন যেখানে করোনা ভাইরাস থাকতে পারে।

প্রশ্ন হলো, করোনা আক্রান্ত হলে কি সবার একই রকম ক্ষতি হয়?

না। করোনার ক্ষতি এখন পর্যন্ত পাওয়া ডাটা অনুযায়ী বয়সভেদে, শারীরিক অবস্থা ও লিংগভেদে ভিন্ন ভিন্ন হয়।

ফেব্রুয়ারি, ২৮, ২০২০ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও চীনের যৌথ মিশনের রিপোর্ট অনুযায়ী, তখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত কনফার্মড কেসের মধ্যে মাত্র ২.৪% রোগী হলো ১৮ বছরের নিচে। এই ২.৪% এর মধ্যে .২% মারণঘাতী লক্ষ্মণ প্রকাশ করেছে। ফলে, বোঝা যাচ্ছে ১৮ বছরের নিচে করোনায় আক্রান্ত হওয়া ও আক্রান্ত হলে সেটি তীব্র অসুস্থতায় পরিণত হওয়ার সম্ভাবনা একেবারেই কম। অন্যদিকে, ৬০ বছরের উপরে বয়সী মানুষদের কোভিড-২০১৯ ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বেশি।

মৃত্যুহার বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় যে, করোনায় আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে ৮০ বছরের উপরে রোগীদের মৃত্যুহার ১৫%, ৭০-৭৯ এর মধ্যে ৮.০%, ৬০-৬৯ বয়সীদের ৩.৬%, ৫০-৫৯ এর মধ্যে ১.৩%, ৪০-৪৯ এর মধ্যে. ৪% এবং ১০-৩৯ এর মধ্যে. ২%। ০-৯ বছরের মধ্যে এখনো কেউ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যায়নি।

মৃত্যুহার থেকেও এটা স্পষ্ট যে, ০-৩৯ বছর বয়সীরা করোনায় কম ক্ষতিগ্রস্ত।

অপরদিকে, নারী রোগীদের মধ্যে মৃত্যুহার ২.৮% এবং পুরুষ রোগীদের মধ্যে মৃত্যুহার ৪.৭%। বোঝা যাচ্ছে যে, নারীরা পুরুষদের চেয়ে তুলনামূলকভাবে কম ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

রোগযুক্ত শারীরিক অবস্থা করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়। যেসব করোনায় আক্রান্তের হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, শ্বাসকষ্টজনিত রোগ আছে তাদের ক্ষেত্রে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সম্ভাবনা বেশি।

সুতরাং, আপনি করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন করোনায় আক্রান্ত কারো মাধ্যমে বা কোন সারফেসের মাধ্যমে। কিন্তু সারফেস স্পর্শ করে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ব্যাপারে গবেষকদের মাঝে দ্বিধা আছে। বৃদ্ধ, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস বা শ্বাসকষ্টজনিত রোগে আক্রান্তদের মাঝে করোনার ক্ষতি বেশি। শিশু, কিশোর ও যুবকদের ক্ষেত্রে করোনার ক্ষয়ক্ষতি সবচেয়ে কম।

নায় ক্ষতি হবার সম্ভাবনা বেশি, কাদের কম?

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT