রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শনিবার ০৪ জুলাই ২০২০, ২০শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

১১:৪৭ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ মেধাবীদের আরো একবার সংবর্ধিত করলো গোপালপুর উচ্চ বিদ্যালয় এ্যালামনাই ◈ নাটোরের লালপুরে পদ্মা নদীতে মহিলার অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার ◈ রাজশাহীতে সাংবাদিকের সঙ্গে পুলিশ কনস্টেবলের মারমুখী আচরণ ◈ ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন করোনায় আক্রান্ত সবার কাছে দোয়া কামনা ◈ ১৪ দিনের জন্য লকডাউন চবি ক্যাম্পাস ◈ গঙ্গাচড়ার তিস্তায় নৌকাডুবি অল্পের জন্য বেঁচে গেল কয়েকটি প্রাণ ◈ মোংলা অনলাইন প্রেস ক্লাবের যাত্রা শুরু ইয়াছিন সভাপতি, আজিজ সম্পাদক ◈ মেহেরপুর শহরে নতুন আরো ৭ জন করোনায় আক্রান্ত ◈ সুন্দরবনকে দস্যু মুক্ত করতে বাগেরহাট জেলা পুলিশের অভিযান শুরু ◈ সিরাজগঞ্জে দেড় লক্ষাধিক মানুষ পানি বন্দি

আমিও শেখ মুজিবুর রহমান হবো

সেলিম সিকদার

প্রকাশিত : ০৮:১৪ AM, ২১ মার্চ ২০২০ Saturday ৬২ বার পঠিত

তানজিদ শুভ্র, সাহিত্য বিভাগ:
alokitosakal

ছোট্ট ছেলে রুহান, সে স্কলার্সহোম নামে একটি ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলে কেজি টু’তে পড়ে। আজ ১৭ মার্চ শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে স্কুল চত্বর সাজানো, কেক কাটা, শিশুদের ছবি আঁকার প্রতিযোগিতা, এছাড়া আরো কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। স্কুল ছুটির শেষে রুহান বাড়িতে এসেছে, কিন্তু তার মনে একটি প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে। কে এই শেখ মুজিবুর রহমান ! অবশেষে রুহান তার বাবাকে বললো, বাবা তুমি কি আমাকে শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে বলবে ? তার বাবা বলল কি হয়েছে বাবু ? রুহান বলল না, তেমন কিছু হয় নি। আজ স্কুলে শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। তাই আমি জানতে চেয়েছি আমাকে একটু বলো না।

ছেলের অনুরোধে বাবা শেখ মুজিবুর রহমান সম্পর্কে বলতে শুরু করলেন-
তিনি বললেনঃ তাহলে শোনো,
১৯২০ সালের ১৭ ই মার্চ ভারতীয় উপমহাদেশের বঙ্গ প্রদেশের ফরিদপুর জেলার গোপালগঞ্জ মহকুমার পাটগাতি ইউনিয়নের টুঙ্গিপাড়া গ্রামে একটি শিশু জন্মগ্রহণ করেন। শিশুটি জন্ম গ্রহণ করা অন্যান্য শিশু ন্যায়,  তার পরিবারের সকল সদস্যরা আনন্দে মেতে উঠেন। রুহান আবার বলে উঠলেন কে এই শিশু বাবা ? তার বাবা বললেন তুমি যে ব্যক্তি সম্পর্কে জানতে চেয়েছ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এই শিশুটি। শেখ মুজিবুর রহমান এমন বড় একজন নেতা ছিলেন, তার নাম বাংলাদেশের ইতিহাসের স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। এমন নেতা বাংলার মাটিতে আর কখনো হয়তোবা আসবে না !

তিনি যখন জন্মগ্রহণ করেন তখন আমাদের দেশ ব্রিটিশদের অধীনে ছিল আর সেই ব্রিটিশদের শাসন থেকে, পাকিস্তানি দালালদের হাত থেকে আমাদের এই দেশকে মুক্ত করে ২৬ শে মার্চ ১৯৭১ সালে দেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। বিশ্বের মানচিত্রে নতুন একটি দেশ জন্ম নেয়। যে দেশের থাকে একটি নিজস্ব পতাকা ও একটি নির্দিষ্ট ভূখন্ড। এবং বাহিরের শত্রুর মোকাবেলা করার জন্য সেনাবাহিনী।

শেখ মুজিবুর রহমান সর্বদা নিজেকে উৎসর্গ করে দেশ সেবায় নিয়োজিত ছিলেন। তিনি বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি ও আধুনিক বাংলাদেশের স্থপতি। পৃথিবীর বুকে বাঙালি জাতির উদ্ভবের যার ভূমিকা সর্বসাকুল্য স্মরণীয় হয়ে থাকবেন তিনি হলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান৷ যাকে বাংলাদেশের জাতির পিতা বলা হয় ।

রুহান, আবার প্রশ্ন করে উঠলেন, বাবা কেন তাকে জাতির পিতা বলা হয় ?
পিতা যেমন সন্তানকে বুক দিয়ে আগলে রেখে, তেমনি তিনি তার দিপ্ত মেধা দিয়ে আগলে রেখেছিলেন বাঙালি জাতিকে। দিয়েছিলেন তিনি বাঙালি জাতির মুক্তির ডাক, গড়েছেন সোনার বাংলা নামের একটি প্রান্তর, আর গড়েছেন মায়াভরা একটি বাঙালি জাতি। তাই, তাকে বাঙালি জাতির জাতির জনক বলা হয়।
শেখ মুজিবুর রহমানকে জাতির জনক বলার আরো কিছু কারণ হল-
১৯৪৭ সালে ভারত বর্ষ বিভক্ত হওয়ার পর বাঙালি জাতি অভিভাবকহীন হয়ে পড়েন আর তিনি বাংলাদেশকে সামনে এগিয়ে নিতে নেতৃত্ব দেন। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনকে বেগতিক করার জন্য ১৪ দিন জেলখানায় অনশন পালন করেন, ১৯৫৪ সালে যুক্তফ্রন্টের সদস্য হন, ১৯৬৬এর ৬ দফা দাবি পেশ করেন, ৬৯ গণঅভ্যুত্থান, ৭০ নির্বাচনে জয়লাভ করা এবং ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে অগ্রণী ভূমিকা রাখেন।

তবে সবচেয়ে দুঃখের বিষয় হল যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ যখন নিজের হাতে গড়তে শুরু করল তখন দেশীয় দালালদের হাতে ১৯৭৫ সালের ১৫ ই আগস্ট নির্মমভাবে হত্যা হলেল ! এই হত্যাকাণ্ড ছিল পলাশীর প্রান্তরে নবাব সিরাজউদ্দৌলার হত্যাকাণ্ডের ঘটনার চেয়ে জঘন্যতম। বর্তমান দেশের যোগ্য পিতার জাতির কাণ্ডারি কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তার বোন শেখ রেহানা দেশের বাইরে থাকায় প্রাণে বেঁচে যান। তার মৃত্যুতে আমরা হারালাম হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি যিনি দেশের জন্য, দেশের মানুষের কল্যাণের জন্য, নিরলসভাবে আজীবন কাজ করে গেছেন। রুহান বলল বাবা নিশ্চয় এত বড় মহান নেতা হওয়া একদিনের ব্যাপার না। তার নেতা হওয়ার পিছনে অনেক ত্যাগ-তিতিক্ষা আছে।
বাবা তুমি আমাকে দোয়া করো, শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে আমিও বড় হয়ে মানুষের কল্যাণে কাজ করে আমিও শেখ মুজিবুর রহমান হবো।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT