রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

বৃহস্পতিবার ২১ জানুয়ারি ২০২১, ৮ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

১০:০৮ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ ফাঁড়ি পুলিশের উদ্যোগে বিট পুলিশিং সভা ◈ ভালুকা পৌর নির্বাচন: প্রচারণায় ব্যস্ত মমেক ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল হাসান ◈ রাজশাহীর পবার মাঝিগ্ৰামে তথ্য আপাদের উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় ◈ কিশোরগঞ্জে তামাকের দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী ◈ শ্রীনগরে হাঁসাড়ায় শীতবস্ত্র বিতরণ ◈ গাজীপুর মহানগর অসহায় ও হতদরিদ্রদের মাঝে কম্বল ও মাক্স বিতরণ ◈ ময়মনসিংহ রেঞ্জে বিট পুলিশিং সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ কর্মসূচীর উদ্বোধন এবং অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত ◈ নারী ফুটবল লীগে নিজ পরিচয়ে খেলতে চায় রংপুরের সদ্যপুষ্করিনী যুব স্পোটিং ক্লাব ◈ মহেশপুরে মাদক, বাল্যবিবাহ এবং আত্নহত্যা প্রতিরোধে ওয়ার্কশপ অনুষ্টিত ◈ দশমিনায় গাঁজাসহ গ্রেফতার ১

আবারও সঞ্চয়পত্রের দিকে ঝুঁকছে মানুষ

প্রকাশিত : ০৩:০৩ PM, ৭ জানুয়ারী ২০২১ বৃহস্পতিবার ৫৫ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

আবারও সঞ্চয়পত্রের দিকে ঝুঁকছে মানুষ। অর্থবছরের প্রথম পাঁচ মাসেই বিক্রি হয়েছে লক্ষ্যমাত্রার ৯৫ শতাংশ। বর্তমান ধারা অব্যাহত থাকলে অর্থবছর শেষে সঞ্চয়পত্রের বিক্রি ৫০ হাজার কোটি টাকা ছাড়াতে পারে। এই প্রবণতা অব্যাহত থাকলে সুদের বোঝা বাড়বে সরকারি কোষাগারের উপর। এমন পরিস্থিতিতে সঞ্চয়পত্রের সুদের হার, প্রচলিত অন্যান্য আমানতের সুদ-হারের সঙ্গে সমন্বয়ের পরামর্শ অর্থনীতিবিদদের।

চলতি অর্থবছরের ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেটে ঘাটতি ১ লাখ ৮৫ হাজার কোটি টাকা। ঘাটতি পূরণে ২০ হাজার কোটি টাকার ঋণ সঞ্চয়পত্র বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে সরকারের। অর্থবছরের প্রথম পাঁচ মাসেই বিক্রি হয়েছে ১৯ হাজার ৪৫ কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র। যা চলতি অর্থবছরের লক্ষ্যমাত্রার ৯৫ শতাংশের বেশি।

২০১৯ সালের জুলাই থেকে মুনাফার ওপর উৎসে কর ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করা হয়। পাশাপাশি সঞ্চয়পত্র কেনায় জাতীয় পরিচয়পত্র ও টিআইএন বাধ্যতামূলক করা হয়। এমন নিয়ন্ত্রণ আরোপের পর প্রায় দেড় বছর সঞ্চয়পত্রে আগ্রহ কমেছিলো গ্রাহকদের। সম্প্রতি ব্যাংক আমানতের সুদহার কমে যাওয়ায় বাড়ছে সঞ্চয়পত্র কেনার প্রবণতা।

চলতি বাজেটের ১১ দশমিক ২ শতাংশ বরাদ্দ ঋণের সুদ পরিশোধে। সঞ্চয়পত্রের বিক্রি লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে গেলে সুদের চাপ আরও বাড়বে বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা।

পিআরআই নির্বাহী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, সঞ্চয়পত্র সুদের সাথে ব্যাংকের এফডিআরের সুদের হারের পার্থক্যটা এখন ৬ থেকে ৮ শতাংশের মতো হয়ে গেছে। এটা কিন্তু বিশাল পার্থক্য। এই বিশাল পার্থক্যের কারণে মানুষ সঞ্চয়পত্রের দিকে আরও বেশি ঝুঁকছে। এটি সরকারের জন্য বোঝা। কারণ এখানে সুদের হার অনেক বেশি।

এমন পরিস্থিতিতে ব্যাংক আমানতের সুদের সাথে সামঞ্জস্য রেখে সঞ্চয়পত্রের বাজার-ভিত্তিক সুদের হার নির্ধারণেই সমাধান দেখছেন এই অর্থনীতিবিদ।

ড. আহসান এইচ মনসুর আরও বলেন, এখানে একটা বিশাল সাবসিডি দেওয়া হচ্ছে বিশেষ জনগোষ্ঠীকে। তারা কিন্তু একেবারে দরিদ্র জনগোষ্ঠী নয়। এক্ষেত্রে সরকারের একটা নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়া দরকার।

এরই মধ্যে বন্ড ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডকে শক্তিশালী করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সাধারণ মানুষকে এসব খাতে বিনিয়োগে উৎসাহিত করার পরামর্শও দিয়েছেন অর্থনীতিবিদরা।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT