রেজি. নং- ১৯৬, ডিএ নং- ৬৪৩৪

শনিবার ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

১২:৫৩ পূর্বাহ্ণ

শিরোনাম
◈ রাজশাহীর দূর্গাপুর থানার ওসি খুরশিদা বানুর তৎপরতায় আইন-শৃঙ্খলার উন্নতি ◈ নতুন দায়িত্বে নূরে আলম মামুন ◈ ভাষা সৈনিকের নাতি শুভ্র’র খুনীরা যতই শক্তিশালী হোক তারা রেহাই পাবে না…..গৃহায়ন ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ ◈ ২ টাকার খাবারের কার্যক্রম এবার ফুলবাড়ীয়া উপজেলায় ◈ রাজশাহীতে মানবাধিকার রক্ষাকারী নেটওয়ার্ক সভা ◈ রায়পু‌রে পুকু‌রে প‌ড়ে দুই শিশুর করুন মৃত‌্যু ◈ পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে কাতার প্রবাসীর সংবাদ সম্মেলন ◈ মহানবী (সাঃ)এর ব্যাঙ্গ চিত্র প্রদর্শনের প্রতিবাদে,মধ্যনগরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত ◈ পত্নীতলায় আমণের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা ◈ ধামইরহাটে মজিবুর রহমান স্মৃতি গোল্ডকাপ ফুটবল প্রতিযোগিতার উদ্বোধন

অনলাইনেও জুয়ার রমরমা ব্যবসা

প্রকাশিত : ০৬:১৯ AM, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ Wednesday ২৫২ বার পঠিত

আলোকিত সকাল রিপোর্ট :
alokitosakal

গত কয়েকদিন ধরের্ যাব ও পুলিশের অভিযানে একের পর বেরিয়ে আসছে জুয়া ও ক্যাসিনো খেলার স্থানের তথ্য। তবে শুধু ক্লাবেই নয় বরং বহুদিন ধরে অনলাইনেও চলে আসছে জুয়ার রমরমা ব্যবসা।

অনুসন্ধানে দেখা যায়, দেশের বাইরে থেকেই পরিচালিত হয় এসব জুয়ার সাইট। বিভিন্ন ধরনের জুয়া খেলার পাশাপাশি আছে বেটিং (বাজি) ব্যবস্থাও। সেগুলোকে আলাদাভাবে বেটিং সাইট নামে ডাকা হয়। এ ছাড়া লটারি ধরাও জুয়াড়িদের কাছে বেশ প্রিয়। ভারত, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্র থেকে নিবন্ধিত হওয়া জুয়া ও বেটিং সাইটগুলোই বেশি পরিচিত দেশের জুয়াড়িদের কাছে।

এসব জুয়ার সাইটে জুয়াড়িরা অনলাইনেই নিবন্ধন করেন। জুয়ায় অংশ নিতে মূল্য পরিশোধ করা যায় ক্রেডিট কার্ডে। যাদের ক্রেডিট কার্ড নেই অথবা যেসব সাইটে বাংলাদেশ থেকে নিবন্ধন করা যায় না সেখানেও আছে বিকল্প ব্যবস্থা।

জুয়ার সাইটগুলোর জন্য ‘এজেন্ট’ হয়ে কাজ করে একদল লোক। তারাই ভিন্ন দেশ থেকে অ্যাকাউন্ট খুলে দেওয়া এবং টাকা পরিশোধের কাজ করে দেন। জুয়াড়ি শুধু বাংলাদেশ থেকে অ্যাকাউন্টটি পরিচালনা করেন। আর ‘হার্ড ক্যাশ’ দেশের বাইরে চলে যায় হুন্ডির মাধ্যমে। তবে কেউ জুয়ায় জিতে গেল সেই অর্থ কীভাবে দেশে আসে সেটি এখনও পরিষ্কার নয় সংশ্লিষ্টদের কাছে।

সাম্প্রতিক সময়ে ভারতের শিলং থেকে পরিচালিত ‘তীর কাউন্টার ডট কম’ এবং ‘তিন পাত্তি গোল্ড’ অনলাইন জুয়ার আসরের নাম বেশি শোনা যায়। এর মধ্যে তীর কাউন্টার সিলেট অঞ্চলের জুয়াড়িদের মধ্যে বহুল ব্যবহৃত। আর তিন পাত্তি গোল্ড মোটামুটি পুরো দেশ থেকেই কমবেশি খেলা হয়। আর বেটিং সাইট হিসেবে বেশ জনপ্রিয় ‘বেট৩৬৫’।

মিরপুরের এক ব্যবসায়ী বরকত উলস্নাহ (ছদ্মনাম) বলেন, ‘দেশের বাইরে থেকে আমার অ্যাকাউন্ট করা। এখানে এক এজেন্টের মাধ্যমে সব কাজ করি। জুয়ার টাকা ওকেই দেই, মোবাইল ওয়ালেটে। আবার আমি টাকা জিতলে সেও মোবাইলে দেয় আমাকে।’

জুয়ায় অংশগ্রহণ অনলাইনে হয় বলে এমন জুয়া নিয়ন্ত্রণে আনাও বেশ কষ্টসাধ্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সরকারি সংস্থাগুলোর জন্য। চলতি বছরের শুরুতে জুয়ার ১৭৬টি সাইটের গেটওয়ে বন্ধ করে দেয় বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন (বিটিআরসি)।

বিটিআরসির সিনিয়র সহকারী পরিচালক মো. জাকির হোসেন খান বলেন, রাষ্ট্র বা জনগণের জন্য ক্ষতিকর বিষয়গুলোর মতো অনলাইনে জুয়া বা বিটের সাইটগুলোর বিষয়েও সজাগ রয়েছে কমিশন। যেগুলোর মাধ্যমে মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হবে সেগুলো বন্ধের ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পাশাপশি বর্তমানে নাম উঠে আসা সাইটগুলোর প্রতি নজর রাখছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) সাইবার ক্রাইমের ইউনিট। ইউনিটের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘জুয়া বা বেটিং সাইটগুলোর দিকে আমাদের নজর আছে। আগেও আমরা এনিয়ে কাজ করেছিলাম এবং বেশ সফলভাবে এগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করেছিলাম। এখন যেগুলোর নাম আসছে বিশেষ করে তিন পাত্তি গোল্ড, এগুলো নিয়েও আমরা কাজ করছি।’

অর্থের লেনদেন সম্পর্কে এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘সাধারণত অর্থ হুন্ডির মাধ্যমে লেনদেন হয়। এই বিষয়টি সিআইডির অর্গানাইজড ক্রাইম বিভাগ থেকে দেখা হয়। আর ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে যেসব লেনদেন হয় সেগুলো আমরা দেখছি।’

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি Alokito Sakal'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyalokitosakal@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

Alokito Sakal'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।




এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। Alokito Sakal | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, Design and Developed by- DONET IT